মেইন ম্যেনু

খন্দকার মাহবুব বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য হচ্ছেন!

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও আইনজীবী নেতা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন বর্তমান সরকারের আমলে মামলায় জড়জড়িত নেতাকর্মীদের পাশে দাঁড়িয়ে টাইম লাইনে চলে এসেছেন। মামলার ভয়ে যখন দলের দাপটি নেতারা মুখ লুকিয়ে রেখেছেন তখন তিনি সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলেছেন অনেকটা দাপটের সঙ্গেই। আইনজীবী নেতা হওয়ার কারণেই অবশ্য তিনি এ সুযোগটা পেয়েছেন। তারপরও তাকে জেলে যেতে হয়েছে। কিন্তু তারপরও পিছ পা হননি তিনি।

দলের ক্রান্তি লগ্নে পাশে থাকা এ নেতাকে সে কারণেই সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণ ফোরাম স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসেবে দেখতে চায় বিএনপির অঙ্গ সংগঠন জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা-জাসাস নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে জাসাস ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি জাহাঙ্গীর শিকদার এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, ‘খন্দকার মাহবুব হোসেন বিএনপির চরম দুর্দিনে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে সক্রিয় থেকেছেন, কথা বলেছেন। এখনো সক্রিয় রয়েছেন। এজন্য তাকে জেলও খাটতে হয়েছে। কিন্তু তিনি পিছপা হননি। তাই আমাদের আশা, বিএনপির আগামী কাউন্সিলে অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেনকে দলের স্থায়ী কমিটিতে দেখতে পাবো।’ এ সময় উপস্থিত নেতাকর্মীরা করতালির মাধ্যমে জাহাঙ্গীর শিকদারের বক্তব্যকে সমর্থন করে।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জাসাস এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন খন্দকার মাহবুব হোসেন। এছাড়া
আরো উপস্থিত ছিলেন-বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক কর্নেল (অব.) লতিফ খান, সহ-তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, জাসাসের কেন্দ্রীয় সভাপতি এমএ মালেক, সাধারণ সম্পাদক কণ্ঠশিল্পী মনির খান প্রমুখ।

তবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার মাহবুব হোসেন এ প্রসঙ্গ নিয়ে কোনো কথাই বলেননি। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ‘আমার হাত ধরেই রিজভী অহমেদ অ্যাডভোকেট হয়েছে।’ এ সময় আলোচনা সভার মঞ্চে আসনগ্রহণকারী রিজভী আহমেদকে হাসিমুখে হাততালি দিতে দেখা যায়।

দলীয় সূত্র জানায়, আগামী মার্চে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের আগেই কাউন্সিল সম্পন্ন করতে চায় বিএনপি। দলের কাউন্সিলে নেতৃত্বে অনেক পরিবর্তন আসতে পারে। সেক্ষেত্রে স্থায়ী কমিটিতে বেশ কয়েকজন নতুন মুখ যোগ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। চেয়ারপারসনের আস্থাভাজন হিসেবে পরিচিত আইনজীবী নেতা অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুবকে ওই পদে আনা হতে পারে বলে দলেও কানাঘোষা চলছে।

তবে বিএনপিতে অলিখিতভাবে আঞ্চলিক প্রথা চালু আছে। সেক্ষেত্রে স্থায়ী কমিটিতে যাওয়ার লড়াইয়ে খন্দকার মাহবুব হোসেনের সঙ্গে বরিশাল অঞ্চল থেকে আরো দুইজন প্রতিদ্বন্দ্বী রয়েছেন। তারা হলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর বীরউত্তম ও অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন।

তাই বরিশাল অঞ্চল থেকে বিএনপির সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরামে কে জায়গা পেতে যাচ্ছেন তা জানার জন্য কাউন্সিল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই