মেইন ম্যেনু

খাদিজা শঙ্কামুক্ত, তুলে নেওয়া হয়েছে লাইফ সাপোর্ট

সিলেটে ছাত্রলীগ নেতার চাপাতির কোপে মারাত্মক জখম খাদিজা আক্তার নার্গিসের লাইফ সাপোর্ট বুধবার সকাল থেকে খোলা রয়েছে। ফলে তিনি স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় শ্বাস প্রশ্বাস নিতে পারছেন। তার চিকিৎসক মনে করছেন, তাকে আর লাইফ সাপোর্টে রাখার দরকার নেই। বৃহস্পতিবার সকালে তার পরিবার এবং চিকিৎসক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

স্কয়ার হাসপাতালের নিউরোসার্জন ও খাদিজার চিকিৎসক ডাক্তার এ এম রেজাউস সাত্তার বলেন, আগামী সপ্তাহে অর্থোপেডিক্স অপারেশনের সময় লাইফ সাপোর্ট দেওয়া লাগতে পারে। এখনও খাদিজা আইসিইউওতে রয়েছেন। তার শরিরীক অবস্থার আরও উন্নতি সাপেক্ষে তাকে এনআইসিইউতে নেওয়ার চিন্তা করা হচ্ছে।

এই খবরে খাদিজার পরবিারের সদস্যদের মধ্যে সস্তি দেখা দিয়েছে। খাদিজার পরিবারের সদস্যরা চিকিৎসকের সঙ্গে পরবর্তী করণীয় ঠিক করতে স্কয়ার হাসপাতালে অপেক্ষা করছেন।

এদিকে গতকাল খাদিজার চাচাতো ভাই নূর আহম্মেদ মোবাইল ফোনে জানিয়েছিলেন, ‘খাদিজা বর্তমানে একটু নড়াচড়া করছেন।শরীরে চিমটি কাটলে মানুষ যেমন নড়ে খাদিজা সেই রকম নড়ছেন।’

তিনি চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে বলেন, খাদিজার সুস্থ্যতার জন্য বর্তমানে যে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে, তাতে শরীরের অবস্থার উন্নতি হলে আরো উন্নত চিকিৎসা দেওয়া হবে।

গত ৩ অক্টোবর শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবি) ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক বদরুল আলম সিলেট এমসি কলেজের পুকুর পাড়ে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে।

ওই ঘটনার পর প্রথমে খাদিজাকে সিলেটে ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গত ৪ অক্টোবর ভোরে ঢাকায় আনা হয়। ওই দিন দুপুরে স্কয়ার হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের পর চিকিৎসকরা তাকে ৭২ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখেন।






মন্তব্য চালু নেই