মেইন ম্যেনু

নাইকো মামলা চলবে, আবেদন খারিজ

খালেদাকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

দুদকের করা নাইকো দুর্নীতি মামলা বাতিল চেয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। ফলে তার বিরুদ্ধে নাইকো দুর্নীতি মামলা চলতে আর কোনো বাধা নেই। সেই সঙ্গে রায়ের কপি পাওয়ার দুই মাসের মধ্যে তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেওয়া হয়।

বিচারপতি নূরুজ্জামান ও বিচারপতি জাফর আহমেদের বেঞ্চ বৃহস্পতিবার দুপুরে এ আদেশ দেন।

এর আগে ২৮ মে উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান ও বিচারপতি জাফর আহমেদের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মামলাটি রায় ঘোষণার জন্য অপেক্ষমাণ রাখেন।

৮ এপ্রিল খালেদা জিয়ার চারটি মামলা শুনানির জন্য হাইকোর্টের নতুন এ বেঞ্চ নির্ধারণ করেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহা।

এর আগে বিচারপতি মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জেবিএম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলাগুলোর শুনানি হয়। এরপর খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা অনাস্থা আবেদন করলে প্রধান বিচারপতি নতুন করে বেঞ্চ গঠন করেন।

খালেদার মামলা স্থগিত করে হাইকোর্টের দেওয়া রুলের শুনানির জন্য দুদকের আবেদনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলাটি সচলের আবেদন করে দুদক।

ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে কানাডীয় কোম্পানি নাইকোর সঙ্গে অস্বচ্ছ চুক্তি করে রাষ্ট্রের প্রায় ১৩ হাজার ৭৭৭ কোটি টাকা ক্ষতির অভিযোগে খালেদা জিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করে দুদক।

২০০৭ সালের ৯ ডিসেম্বর দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক (বর্তমানে উপ-পরিচালক) মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম বাদী হয়ে রাজধানীর তেজগাঁও থানায় মামলাটি করেন।

দুদকের তৎকালীন সহকারী পরিচালক (বর্তমানে উপ-পরিচালক) এস এম সাহিদুর রহমান তদন্ত করে ২০০৮ সালের ৫ মে এ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করেন। অভিযোগপত্রে খালেদা জিয়াসহ ১১ জনকে আসামি করা হয়।

পরে এ মামলার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে আবেদন করেন খালেদা জিয়া। ২০০৮ সালের ১৫ জুলাই নাইকো দুর্নীতি মামলার কাযক্রম দুই মাসের জন্য স্থগিত করা হয়। পরবর্তী সময়ে স্থগিতাদেশের মেয়াদ কয়েক দফায় বাড়ানো হয়।






মন্তব্য চালু নেই