মেইন ম্যেনু

খিদের যন্ত্রনায় রাতে ঘুমাতে পারতো না রনদীপ

গত বছরের দিওয়ালি, রণদীপ হুডার কাছে নতুন ছবির প্রস্তাব আসে। সরবজিৎ সিংয়ের ভুমিকায় অভিনয় করতে হবে তাঁকে। রাজি হয়ে যান তিনি। কিন্তু পরিচালকের প্রস্তাব, জেলে থাকাকালীন যেভাবে সরবজিতের চেহারা ভেঙে গেছিল। রণদীপকে তেমনটা হতে হবে।

কিন্তু ৯৪ কেজির রণদীপের পেটানো চেহারাকে ওভাবে ভাঙা কী সম্ভব ? ব্যাস, শুরু হল অসাধ্য সাধন। হাই ক্যালরি খাবার দাবার খাওয়া একেবারে কমিয়ে দিলেন রণদীপ। কমিয়ে দিলেন খাবারের পরিমাণও। তাঁকে সুস্থ রাখতে খাদ্য তালিকা তৈরি করে দেন তাঁর বোন, চিকিৎসক অঞ্জলি হুডা।

রণদীপ জানাচ্ছেন, দুঃস্বপ্নের মত কেটেছে দিনগুলো। সারাদিন খিদে পেত, কিন্তু খাওয়ার উপায় নেই। মাঝ রাতে ঘুম ভেঙে যেত, কোনো কোনো দিন ঘুমাতেই পারতেন না। স্রেফ খিদে এতটা কাবু করত তাঁকে। একটা সময়ের অধৈর্য হয়ে পড়েছিলেন। অনেক কষ্টে ২৮ দিন কাটিয়েছিলেন, ঝরিয়ে ছিলেন ১৮ কেজি ওজন। শুধু সিনেমার একটা চরিত্র অভিনয়ের জন্য এতটা কষ্ট করতে হয়েছিল তাঁকে।






মন্তব্য চালু নেই