মেইন ম্যেনু

খুনের আগে পর্নো দেখানো হয়েছিল মণিকাকে

ভারতের খ্যাতনামা সুগন্ধি ব্যবসায়ী মণিকা ঘুর্দে হত্যা রহস্যে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসছে। অভিযুক্ত নিরাপত্তারক্ষী রাজকুমার সিং পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, খুনের আগে পর্নোগ্রাফি দেখানো হয়েছিল মণিকাকে।

গত ৫ অক্টোবর নিজের ফ্ল্যাটে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় মণিকা ঘুর্দেকে। উলঙ্গ মণিকার হাত বাঁধা ছিল বিছানায়। ময়নাতদন্তে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। শুরু থেকেই মনিকার ফ্লাটের সাবেক নিরাপত্তারক্ষীকে সন্দেহ করেছিল পুলিশ। পরে গ্রেফতার করা হয় তাকে। পুলিশের কাছে নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেছে রাজকুমার নামে ওই যুবক।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ফ্ল্যাটে ঢুকে ছুরি মাথায় ঠেকিয়ে মণিকাকে ভয় দেখায় সে। পরে তিনি জ্ঞান হারালে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয় তাকে। জিজ্ঞাসাবাদে আরো বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। খুনের আগে মণিকার মোবাইলের পাসওয়ার্ড জেনে নেয় রাজকুমার। পরে বেশ কয়েকটি পর্ন ভিডিও ডাউনলোড করে সেগুলো নিজে দেখে এবং মণিকাকে দেখিয়ে উত্তেজিত করার চেষ্টা করে।

পুলিশ বলছে, মণিকা প্রথম যখন ফ্লাটে আসেন তখন এই নিরাপত্তারক্ষীর মাধ্যমেই তিনি ঘরের খোঁজ পান। পরে গাড়ি পরিষ্কার করার কথা বলে মণিকার ফ্ল্যাটে যাতায়াত শুরু হয় রাজকুমারের। এর মধ্যে মণিকার ছাতা হারালে তা উদ্ধার হয় রাজকুমারের ঘর থেকে। ফ্লাটের অন্য বাসিন্দাদেরও নানা অভিযোগের ভিত্তিতে বরখাস্ত করা হয় ওই নিরাপত্তারক্ষীকে।

বেশ কিছুদিন ধরে চাকরির জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন রাজকুমার। পরে প্রতিশোধ নিতে মরিয়া হয়ে উঠেন তিনি। প্রতিশোধ নিতেই মণিকাকে ধর্ষণের পর খুন করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।






মন্তব্য চালু নেই