মেইন ম্যেনু

খুলনায় স্কুলছাত্রের বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার

খুলনা মহানগরীর আড়ংঘাটার কার্ত্তিককুল গ্রামের একটি ডোবা থেকে নিখোঁজের তিনদিন পর হাসমী মিয়া (৯) নামে এক স্কুলছাত্রের বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। সে সরদার ডাঙ্গা গ্রামের হাফিজুর রহমানের ছেলে ও সরদারডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েল চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র।

নিহত শিশুর বাবা হাফিজুর রহমান জানান, গত ৬ জুন বিকেলে অন্যান্য দিনের মতো আমার ছেলে হাসমী খেলা করতে যায়। সেখান থেকে তাকে একই এলাকার রসুল ও নুরন্নবী নামে দু’জন ছেলে ডেকে নিয়ে যায়। কিন্তু তারপর সে ফিরে আসেনি। পরে অনেক খোঁজাখুজি করে না পেয়ে বুধবার আড়ংঘাটা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করি।

বৃহস্পতিবার সকালে এলাকাবাসী ডোবার মধ্যে সিমেন্টের বস্তায় ভরানো একটি লাশ দেখতে পেয়ে আমাকে সংবাদ দেয়। পুলিশকে বিষয়টি জানালে তারা লাশটি উদ্ধার করে। ৫/৬ মাস আগে আমার স্ত্রীর সঙ্গে তালাক হয়।

শিশুটির মা সোনিয়া বেগম জানান, ৩/৪ দিন আগে আমার ছেলের সঙ্গে ফোনে আলাপ হয়। সে তখন ভালো আছে বলে জানিয়েছে। নিয়মিত স্কুলে যাচ্ছে। সে নিখোঁজ হয়েছে এ বিষয়টি আমাকে জানানো হয়নি। পরে সকালে জানতে পারি তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

আড়ংঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসিম খান জানান, সকালে একটি ডোবানালার মধ্যে বস্তাবন্দী মৃতদেহ দেখে এলাকাবাসী খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

তিনি আরো জানান, শিশুটি তিনদিন আগে থেকে নিখোঁজ ছিল। বুধবার তার পরিবার এ বিষয়ে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। কে বা কীভাবে হত্যা করা হয়েছে সে বিষয়ে অনুসন্ধান চলছে। এ বিষয়ে নিহত শিশুটির বাবা বাদী হয়ে থানায় তিন জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করেছে। স্কুলছাত্র হাসমীর মা সোনিয়া বেগমকে র‌্যাব জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে গেছে বলে তিনি জানিয়েছেন।






মন্তব্য চালু নেই