মেইন ম্যেনু

খেলা নেই তবু ব্যস্ত সাকিব

খেলা নেই। কিন্তু ছুটিও নেই। সাকিব আল হাসান এখন ভীষণ ব্যস্ত। শুটিং নিয়েই এই ব্যস্ততা। শুটিংটাও যে সিনেমার নয় তা তো বুঝতেই পারছেন। মাঠের সাকিব ক্যামেরার সামনে ব্যস্ত বিজ্ঞাপনের শুটিং নিয়ে।

কোয়ালিফায়ার ম্যাচে বরিশাল বুলসের কাছে হেরে গত ১৩ ডিসেম্বরই বিপিএল থেকে বিদায় নিয়েছে সাকিবের দল রংপুর রাইডার্স। অনেকের ধারণা ছিল, টি-টোয়েন্টির বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার হয়তো দ্রুতই ধরবেন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লাইট। স্ত্রী শিশির আর দেড় মাসের শিশু সন্তান যে সেখানেই।

তবে আগেই প্রতিশ্রুত পড়ে থাকা অনেকগুলো কাজ সেরেই যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন বলে স্থির করেছেন সাকিব। তাই রয়ে গেলেন দেশেই। সাকিব বললেন, ‘আসলে অনেকগুলো শুটিংয়ের কাজ জমা হয়ে ছিল। এখন সেগুলো শেষ করছি। কাজগুলো শেষ হলেই চলে যাব।’ দুপুরে কথাগুলো বলার সময়ও নাকি তিনি ছিলেন কোনো একটা শুটিং স্পটে।

বিপিএলের আগে ব্যস্ততা ছিল জিম্বাবুয়ে সিরিজ নিয়ে। প্রথম সন্তানের জন্ম উপলক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডে খেলেই সাকিবকে উড়ে যেতে হয় যুক্তরাষ্ট্রে। আবার ফেরেন বিপিএল শুরুর আগের দিন। মাঠের বাইরের কাজগুলো তাই জমা হয়েই থাকার কথা। সেগুলো শেষ করে কখন আবার স্ত্রী-সন্তানের কাছে যাবেন, সাকিব এখন সেই অপেক্ষায়। আগামী ২৩ ডিসেম্বর তাঁর যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার সম্ভাব্য তারিখ। চারবার এত দীর্ঘ বিমানপথ আসা-যাওয়ার শেষ হবে না এখানেই। জানুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ আছে। দ্রুতই আবার ফিরতে হবে সাকিবকে। এই অলরাউন্ডার জানালেন, ‘২৩ তারিখে চলে যাব। কবে ফিরব সেটা এখনো ঠিক করিনি।’

বিপিএলে ১১ ম্যাচ খেলে রান করেছেন ১৩৬। ফিফটি নেই একটিও। ব্যাট না হাসলেও বল হাতে বেশ সফলই ছিলেন সাকিব। ১৮ উইকেট নিয়ে নিজের শেষ ম্যাচ পর্যন্ত ছিলেন সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হওয়ার দৌড়ে। তবে বিপিএলের পারফরম্যান্স নিয়ে কথা বলতে খুব একটা আগ্রহী মনে হলো না সাকিবকে। বিপিএলের প্রথম দুই আসরেরই সেরা খেলোয়াড়ের এবারের অভিজ্ঞতাটা যে সুখকর নয়।

মাঠের রাজা অবশ্য অনেক দিন থেকেই রাজত্ব মাঠের বাইরেও নিয়ে গেছেন। এই মুহূ​র্তে বিজ্ঞাপন জগতে সাকিব সবচেয়ে প্রিয়মুখ। সাবান থেকে টেলকো—সব বিজ্ঞাপনেই আছেন সাকিব।






মন্তব্য চালু নেই