মেইন ম্যেনু

গণঅভ্যর্থনায় যানজটে জনজীবন স্থবির

সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্রবার। সাধারণত এ দিনে রাজধানীর সড়কগুলো থাকে একেবারে ফাঁকা। তবে আজ যানজটে অচল রাজধানী। জট লেগেছে সেই দুপুরে। খোলেনি রাতেও। রাত সাড়ে ৮টা নাগাদ রাজধানীর প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে হাজার হাজার যানবাহন আটকা পড়ে রয়েছে। ছুটির দিনে এমন যানজটে স্থবির রাজধানীর জনজীবন।

জাতিসংঘের অধিবেশন উপলক্ষে বিদেশ সফরের ১৭ দিন পর আজ (শুক্রবার) দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর দুটি বিশেষ পুরস্কার ও সম্মাননা পাওয়ায় দেশে ফেরার দিন তাকে গণঅভ্যর্থনা জানিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও ১৪ দল। দুপুর থেকেই ঢাকা ও এর আশেপাশের জেলাগুলো থেকে গণঅভ্যর্থনা কেন্দ্র করে রাজপথে অবস্থান নেয় হাজার হাজার নেতা-কর্মী। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে গণভবন পর্যন্ত সড়কের দু`পাশে ব্যানার-ফেস্টুন নিয়ে তারা প্রধানমন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানান।

অনেকেই আবার মিছিল নিয়ে এসে রাজপথ দখলে নেয়। এতে তীব্র যানজট দেখা দেয় রাজধানী জুড়ে। হজরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে খিলক্ষেত, কুড়িল ফ্লাইওভার, হোটেল রেডিসন, কাকলী মোড়, বনানী, জাহাঙ্গীর গেট, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, বিজয় সরণি, সামরিক জাদুঘর, জাতীয় সংসদ ভবন মোড় ও গণভবনের সামনে মূল রাস্তাতেও অবস্থান নেন নেতাকর্মীরা। এর ফলে তীব্র যানজটের কবলে পড়েছে রাজধানী।

বিজয় সরণীতে কর্তব্যরত এক ট্রাপিক ইন্সপেক্টর নাম প্রকাশ না করে বলেন, দুপুরের পর থেকেই যানজট বাড়তে থাকে। সন্ধ্যার পর আরো তীব্র হয়। অনেক চেষ্টা করেও নেতাকর্মীদের মূল রাস্তা থেকে সরানো যায়নি। এতে করে গণপরিবহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটে।

এদিকে, বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঢাকা পৌঁছানোর কথা থাকলেও তাকে বহনকারী বিমানটি প্রায় দেড় ঘণ্টা পর ঢাকায় অবতরণ করে। প্রধানমন্ত্রীর জন্য এই বাড়তি অপেক্ষাও যানজটের কারণ বলে মনে করছেন তারা।






মন্তব্য চালু নেই