মেইন ম্যেনু

গণকবরের সন্ধান মেক্সিকোয়

মেক্সিকোর একটি এলাকায় সহিংস অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে নিহতদের একটি গণকবরের সন্ধান পাওয়া গেছে। দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা এদের কবর দিয়েছিল।

গণকবরটি থেকে ১০৫ জনের দেহাবশেষ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় সরকারের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। শুক্রবার সরকারি কর্মকর্তারা এ তথ্য জানিয়েছেন।

২০১৩ সালে অপহৃত এক ব্যক্তির পরিবারের সদস্যরা এ গণকবরটির সন্ধান দেন।

মরিলস অঙ্গরাজ্যের সরকারি আইনজীবী জেভিয়ের পেরেজ জানান, দেহাবশেষগুলো আদিবাসী অধ্যুষিত ক্ষুদ্র মরিলস রাজ্য থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ রাজ্যে দেশের অন্য অঞ্চলের তুলনায় অপহরণের ঘটনা সবচেয়ে বেশি।

স্থানীয় নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলা ও আইন ভঙ্গের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে কতজন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে এ তদন্ত করা হবে কিংবা গণকবরটি কত দিন ধরে ব্যবহার করা হচ্ছিল, এ ব্যাপারে কিছুই জানানো হয়নি।

পেরেজ জানান, এক দশক ধরে মেক্সিকোতে মাদক ব্যবসা বেড়ে যাওয়ায় এ নিয়ে সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়েছে। যেসব মৃতদেহ চিহ্নিত করা সম্ভব হতো না সেগুলো স্থানীয় কবরস্থানে দাফন করত পুলিশ। কর্মকর্তাদের অনুমতি নিয়েই এ কাজটি করা হতো। তবে যেখান থেকে ১০৫টি দেহাবশেষ উদ্ধার করা হয়েছে, সেটি অনুমোদিত কবরস্থান ছিল না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মানবাধিকার কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অধিকাংশ মৃতদেহ প্লাস্টিকের ব্যাগের ভেতরে ছিল। ব্যাগের ভেতর থেকে মামলা নম্বর লেখা বোতল পাওয়া গেছে।

তিনি জানান, দেহাবশেষগুলো একসঙ্গে একটি বিশাল গর্তের মধ্যে ছিল।

সূত্র: রয়টার্স






মন্তব্য চালু নেই