মেইন ম্যেনু

গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক পাই (π) দিবস উদযাপিত

বিধান মুখার্জী, গণ বিশ্ববিদ্যালয় (সাভার) থেকে: সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে ফলিত গণিত বিভাগের উদ্যোগে আজ ১৪ মার্চ  আন্তর্জাতিক পাই (π) দিবস উদযাপিত হয়েছে ।দিবসটি উপলক্ষে আয়োযিত বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যে ছিল বর্নাঢ্য র্যালী , পাই দিবসের বিশেষ কেক কাটা ও পাই (π) এর রহস্যময়তা বিষয়ক প্রবন্ধ পাঠ ।

দুপুর ১ টা ৫৯ মিনিট ২৬ সেকেন্ডকে পাই সেকন্ড হিসেবে উৎসর্গ করে কেক কর্তনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটির শুভ উদ্বোধন করেন ফলিত গণিত বিভাগের চ্যেয়ারম্যান ড. আব্দুস ছালাম ।এসময় বিভাগের সিনিয়র প্রভাষক কনক চন্দ্র রায় সহ বিভাগটির সকল শিক্ষক শিক্ষিকা এবং সাধারন শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন ।

এরপর শিক্ষক শিক্ষিকা এবং সাধারন শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে এক বর্নাঢ্য র্যালীরপর  পাই (π) এর রহস্যময়তা বিষয়ক প্রবন্ধ পাঠ অনুষ্ঠান শুরু হয় ।এসময় ছাত্রছাত্রীদের পক্ষে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মোঃ সোহাগ ।তিনি বলেন ‘১৯৮৮ সালে প্রথম পাই (π)  দিবস পালন করা হয় ’। কিন্তু  বাংলাদেশে এই প্রথম কোন বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে দিবসটি পালিত হয়েছে বলেও দাবী করেন তিনি ।

ড. আব্দুস ছালাম তার বক্তব্যে  বলেন ‘১৪ই মার্চ পাই দিবস কেন হল, তা অনেকেই জানেন। ৩.১৪, মার্কিন নিয়মে পাইয়ের এই মানটি ১৪ই মার্চকে নির্দেশ করে। পাইয়ের এই আনুমানিক মানের তাৎপর্য মেনে প্রথম পাই দিবস পালন শুরু হয়েছিল আমেরিকার স্যান ফ্রানসিস্কোর একটি বিজ্ঞান জাদুঘরে । এক্সপ্লোরেটোরিয়াম নামের এই জাদুঘরে দিবসটি পালন শুরু করেছিলেন ল্যারি শ । শ’কেই তাই পাই দিবসের জনক হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়’।

অনুষ্ঠানটির আহ্বায়ক বিধান মুখার্জীর কাছে জানতে চাইলে তনি বলেন ‘ বৃওের পরিধী আর ব্যাসের অনুপাত এই পাই এর মান একটি অসীম সংখ্যা ।আর পাই এর মান সম্পর্কে গণিত প্রেমীদের আগ্রহি করে তোলার জন্য বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই পাই (π)  দিবস পালন করা হয় ’ ।






মন্তব্য চালু নেই