মেইন ম্যেনু

‘গত মাসে ১৮টি বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড’

গত মে মাসে ১৮টি বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড হয়েছে বলে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে মানবাধিকার সংস্থা অধিকার। সংস্থাটির ওয়েবসাইটে সোমবার এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

অধিকার জানিয়েছে, নিহতদের ১৪ জন ‘বন্দুকযুদ্ধের’ শিকার হয়েছেন। এর মধ্যে তিনজন র‌্যাবের হাতে, ১১ জন পুলিশের হাতে নিহত হন। একই সময়ে একজন পুলিশের পিটুনি, দুইজন পুলিশের নির্যাতনে ও একজন বিজিবির কোপে নিহত হন।

নিহত ১৮ জনের মধ্যে একজন মোটরগ্যারেজের মালিক, একজন অজ্ঞাত যুবক, একজন প্রাইভেট ফার্মের নিরাপত্তাকর্মী, পাঁচজন কথিত মানবপাচারকারী ও ১০ জন কথিত অপরাধী বলে অধিকার উল্লেখ করেছে।

অধিকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড অব্যাহত থাকায় দেশে আইনের শাসন ও বিচার ব্যবস্থা প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়েছে এবং মানবাধিকার চরমভাবে লঙ্ঘিত হচ্ছে।’

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, গত মাসে আটকের পর পুলিশ তিনজনের পায়ে গুলি করেছে। গত জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত পুলিশ অন্তত ৩০ জনের পায়ে গুলি করেছে।

অধিকারের তথ্য অনুযায়ী, জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত অন্তত ৩৬ জন গুম হয়েছেন। এর মধ্যে আটজনের লাশ পাওয়া গেছে, ১৬ জনকে গুম পরবর্তী আদালতে সোর্পদ করা হয়েছে। বাকি ১২ জনের খোঁজ মেলেনি।

এ ছাড়া রাজনৈতিক সহিংসতা, সমুদ্রে মানবাধিকার লঙ্ঘন, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা, মত প্রকাশের স্বাধীনতা, ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বিএসএফের হাতে মানবাধিকার লঙ্ঘন, ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মানবাধিকার লঙ্ঘন, গণপিটুনিতে মানুষ হত্যা, নারীর প্রতি সহিংতার বিষয়ে পরিসংখ্যান তুলে ধরেছে অধিকার।

প্রতিবেদনের শেষে মানবাধিকার লঙ্ঘন রোধে ১০ দফা সুপারিশ উত্থাপনও করেছে অধিকার।






মন্তব্য চালু নেই