মেইন ম্যেনু

গর্ভধারিনী মায়ের উপর পাষণ্ড ছেলে আর পুত্রবধূর এ কেমন অত্যাচার?

গর্ভধারিনী মাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে তারই নাড়িছেঁড়া ধন ছেলে আর ছেলের বউ। গলাধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়ার আগে মায়ের পেনশন আর বয়স্কভাতার বই, জমি বিক্রির ৫০ হাজার হাতিয়ে নিয়েছে তারা। চোখের পানি ফেলতে ফেলতে মা চলে গেছেন তার মেয়ের বাড়িতে।

এ ঘটনা ঘটেছে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার হাজীগঞ্জ ওয়াবদারপুল এলাকায়।

অসহায় ওই মায়ের নাম জরিনা বেগম। তিনি নারায়ণগঞ্জ সদরের হাজীগঞ্জ ওয়াবদারপুল এলাকার আব্দুল লতিফের স্ত্রী। বেশ কয়েক বছর আগে আব্দুল লতিফ মারা গেছেন। তাদের একমাত্র ছেলের নাম সোলায়মান।

বর্তমানে মা জরিনা বেগম বন্দরনগরীর সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় তার মেয়ের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

সম্প্রতি জরিনা বেগম নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা আফরোজা আক্তার চৌধুরীর কাছে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ করেছেন। তারও আগে তিনি ফতুল্লা মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। কিন্তু পুলিশ সে ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

লিখিত অভিযোগে জরিনা বেগম বলেন, স্বামী আব্দুল লতিফ মারা যাওয়ার পর স্বামীর বাড়িতেই বসবাস করে আসছেন। তাবে একমাত্র ছেলে সোলায়মান তার কোনো ভরণ পোষণ বহন করছিল না। বয়স্ক ভাতা ও পেনশন ভাতা দিয়ে চলছিল তার জীবন। কিন্তু কিছুদিন ধরে ছেলে আর ছেলের বউ মিলে তার ওপর নির্যাতন চালাচ্ছে। মারপিট করে জমি বিক্রির ৫০ হাজার টাকা, বয়স্ক ভাতা ও পেনশন বই রেখে দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে।

জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফরোজা আক্তার চৌধুরী বলেন, ‘এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এ ব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের তদন্তের দায়িত্ব প্রাপ্ত এসআই নাজমুর রহমান বলেন, ‘এ বিষয়ে আমার সাথে কেউ যোগাযোগ করেনি। যোগাযোগ করলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব।’






মন্তব্য চালু নেই