মেইন ম্যেনু

গর্ভবতীদের নিয়মিত খাওয়া উচিৎ কলার মোচা

সুস্বাস্থ্যের জন্য কাঁচাকলা যেমন উপকারী সবজী তেমনি কলার মোচাও। সুলভে পাওয়া যায় তাই, গ্রামে-গঞ্জে অনেকের কাছে কলার মোচা ফেলনা। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এ মোচায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন। বিশেষ করে শিশুর মস্তিষ্ক গঠনে গর্ভবতী মায়েদের নিয়মিত এ সবজি খাওয়া উচিৎ। এছাড়াও আরো বহুগুনে সমৃদ্ধ এ সবজি।

১) রক্তের মূল উপাদান হিমোগ্লোবিনকে শক্তিশালী করতে কলার মোচার তুলনা হয় না। দেহে রক্তের পরিমাণ ঠিক রাখতে বা রক্তশূন্যতায় ভোগা রোগীদের জন্য কলার মোচা খুবই উপকারী।

২) কলার মোচায় আয়রনের সঙ্গে আছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, আয়োডিন ইত্যাদি। গলগণ্ড বা গয়টার রোগের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে আয়োডিন।

৩) কলার মোচায় থাকা ভিটামিন ‘এ’ রাতকানা রোগের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। অকালে দৃষ্টিশক্তি হারানো থেকে রক্ষা পেতে নিয়মিত কলার মোচা খেতে পারেন।

৪) গর্ভস্থ শিশুর প্রায় ৭০ ভাগ মস্তিষ্কের গঠন মায়ের পেটে থাকা অবস্থায় হয়ে থাকে। গর্ভবতী নারীদের এবং শিশুর সুস্বাস্থ্যের জন্য নিয়মিত পরিমিত পরিমাণে কলার মোচা খাওয়া উচিৎ।

৫) ত্বক, চুল ভালো রাখতে এই সবজির আয়রন গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে। এতে থাকা ক্যালসিয়াম, আয়োডিন, ম্যাগনেশিয়াম দাঁতের গঠনেও রাখে অগ্রণী ভূমিকা।

৬) মেনোপোজ বা নির্দিষ্ট বয়স পরে মাসিক বন্ধ হয়ে যাওয়া নারীদের হাড় গঠন মজবুত করতে এই সবজি খুবই উপকারী। বয়স্ক নারী-পুরুষ ও বাড়ন্ত শিশু, খোলায়াড় বা যারা শারীরিক পরিশ্রম বেশি করেন তাদের জন্য এই সবজি আশীর্বাদস্বরূপ।

সাবধানতা: অতিরিক্ত আয়রণ থাকায় কলার মোচা বেশি খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য হতে পারে। তাই পরিমিত পরিমাণে কলার মোচা খেয়ে গ্রহণ করুন প্রয়োজনীয় উপকার।






মন্তব্য চালু নেই