মেইন ম্যেনু

গিয়েছিল রাজমিস্ত্রির কাজে, ফিরলো কোটিপতি হয়ে !

ভাগ্য বোধহয় এরেই কয়। কাল যে ছিল দিন আনা দিন খাওয়া এক শ্রমিক মাত্র, রাতারাতি আজ সে কোটিপতি।

সৌজন্যে- স্রেফ একটা লটারির টিকিট। আর ওই টিকিটটাই মালদার এক যুবকের জীবনটা বদলে দিয়েছে। মালদায় রাজমিস্ত্রির কাজ করে তেমন পোষাচ্ছিল না। তাই বেশি আয় আর কাজের খোঁজে কেরালা পৌঁছয় মালদার উত্তর লক্ষ্মীপুরের যুবক মফিজুল শেখ।

এমনিতেই লটারির টিকিট কাটার অভ্যেস ছিল বছর বাইশের এই যুবকের। কেরালার ভেল্লিমাড়ুকুন্নুতে পৌঁছনোর দিন তিনেক পরে তিনি ৫০ টাকা খরচ করে “কারুণ্য” লটারির একটি টিকিট কাটে সে ।

রাতে বিছানায় শোওয়ার আগেও সে ভাবতে পারেনি নতুন দিনটা তার জীবনকে আমূল বদলে দেবে। সকালের কাগজ বলে দেয় ফার্স্ট প্রাইজ় জিতেছে তার টিকিট। আর লেবার খেটে খেতে হবে না তাকে। কোটিপতি সে।

তারপরই ভয় পেয়ে বসে মফিজুলকে। সহকর্মীরা আক্রমণ করে টিকিট ছিনিয়ে নেবে না তো ? এই আতঙ্কে ও আশঙ্কায় স্থানীয় থানায় চলে যায় মফিজুল। তাকে সাহায্য করে পুলিশ। নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় ব্যাঙ্কে। সেখানেই অ্যাকাউন্ট খুলে জমা দেয় টিকিট।

লেবার খাটতে যাওয়া মফিজুল এখন নিজের ঘরে ফিরবে কোটিপতি হয়ে। কী করবে এবার ? মফিজুলের ইচ্ছে, একটা মনের মতো বাড়ি বানাবার। আর ইচ্ছে, কিছু জমি কেনার। তারপর…। না আর কিছু বলতে পারেনি মফিজুল। তার কাছে এখনও সব স্বপ্নের মতো।






মন্তব্য চালু নেই