মেইন ম্যেনু

গুগলের ‘এপ্রিল ফুলে’ চাকরি হারালো অনেকে

পহেলা এপ্রিলে চালু হওয়া ‘মাইক ড্রপ’ অপশনটি গ্রাহকদের নেতিবাচক প্রক্রিয়াতে সরিয়ে নিলো গুগল। নতুন এই অপশনটিতে অতিরিক্ত একটি ‘সেন্ড’ বাটন যুক্ত হয়েছিল, যা দিয়ে জিমেইল ব্যবহারকারীরা হঠাৎ করে ইমেইল কনভারসেশন শেষ করতে পারতো ‘ড্রপিং দ্য মাইক’ এ ক্লিক করে।

‘সেন্ড+ মাইক ড্রপ’ অপশন ব্যবহার করে সবাইকে ইমেইল পাঠানো যাবে তবে এই কনভারসেশনে এটি হবে শেষ মেইল। কেউ যদি মেইলের জবাবও দেয়, আপনি আর সে মেইল দেখতে পাবেন না।’ এমন একটি বার্তা দেখাচ্ছিল জিমেইলে।

‘মাইক ড্রপ’ একটি জনপ্রিয় মেমে। এর মানে বুঝায় বক্তব্য শেষে মাইক্রোফোন রেখে দেয়া এবং এরপর বিশেষ মুখভঙ্গি।

গুগলের ওই বাটনে প্রেস করলে ইমেইল হিসেবে একটি অ্যানিমেটেড ‘মাইক ড্রপ’ মিনিয়ন জিআইএফ ইমেজ চলে যেতো। এরপর ইমেইল আদান প্রদান নিস্তব্ধ হয়ে যেতো। যাকে মেইল পাঠানো হয়েছে তিনি মেইলের উত্তর দিলেও কোনো নোটিফিকেশন ছাড়া মেইলটি ‘অল মেইল’ ফোল্ডারে জমা হতো। এই ফোল্ডারটি সচরাচর ব্যবহারকারীরা খোলেন না।

এই অপশন চালু হওয়ার পর জিমেইল গ্রাহকরা বন্ধুদের কাছে হয়েছে অপমানিত। অনেকে হারিয়েছে শখের চাকরি। অনেকে হয়েছেন সহকর্মীর বিরক্তির কারণ। গ্রাহকদের তীব্র প্রতিক্রিয়াতে চালু করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে গুগল এই অপশনটি বন্ধ করে দেয়।

2016_04_01_21_21_34_yPZDW8dAeYXt1YcLcLbs7bShEpoVgG_original

মাইক ড্রপ মেমেটি এরকম

এক বিবৃতিতে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, ‘এটি অনেকটা আমাদের এই বছরে মজা করার একটি উপলক্ষ। তবে নতুন এই অপশনটি হাসির কারণ হওয়ার থেকে মানুষের মাথাব্যথার কারণ হয়েছে বেশি। আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত। ইতোমধ্যে এই অপশনটি বন্ধ করা হয়েছে। কেউ যদি এখনও অপশনটি দেখতে পান, তাহলে তাদেরকে জিমেইল পেইজ রিলোড করার অনুরোধ করা হলো।’

তবে এই মজা করার ব্যাপারটি থেকে রক্ষা পেয়েছিল জিমেইলের বিজনেস গ্রাহক এবং এক্সপ্লেইনড ব্যবহারকারীরা। তাদের আগেই সতর্ক করা হয়েছিল এই বাটন সম্পর্কে।

ব্যবহারকারীরা প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছে, অনেকের কাছে জিআইএফ ইমেজটি বিরক্তিকর মনে হয়েছে, কেউ অনেক গুরুত্বপূর্ণ অফিসিয়াল মেইল ভুল করে ২০/৩০ জনের কাছে পাঠিয়ে দিয়ে পড়েছেন বিপদে।






মন্তব্য চালু নেই