মেইন ম্যেনু

গুগলে কি খুঁজছে সিরীয়রা

ইন্টারনেট দুনিয়ায় সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে গুগল সবচেয়ে জনপ্রিয়। ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্য কোনো কিছু খুঁজতে গেলে গুগল ব্যবহারের হার সর্বাধিক। আর এই খুঁজে দেখার সূত্র ধরে গুগল সহজেই বলে দিতে পারে, কোন অঞ্চলের মানুষ কোন বিষয়গুলো গুগলে সার্চ করে। সম্প্রতি গুগল সিরিয়ার ইন্টারনেট ব্যবহারকারী জনগোষ্ঠির উপর একটি সমীক্ষা চালায়। সেই সমীক্ষায় দেখা যায়, সিরিয়ার জনগণ নিজ দেশ ছাড়ার প্রেক্ষাপটে শরণার্থী হিসেবে যাওয়া দেশগুলোর ব্যাপারেই অধিক অনুসন্ধান চালিয়েছে।

গুগল জানায়, সিরিয়ার অধিকাংশ মানুষই এখন সেই সব দেশগুলো সম্পর্ক জানতে গুগলে অনুসন্ধান চালাচ্ছে যেখানে তারা শরণার্থী হিসেবে যেতে পারবে। এর মধ্যে অন্যতম হলো ‘গ্রিস’ এবং ‘জার্মানি’। পাশাপাশি সিরীয় মানুষগুলো শরণার্থী হিসেবে যাওয়া দেশগুলোর হাসপাতাল সুবিধা থেকে শুরু করে প্রশাসনিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে অনুসন্ধান করছে। তবে অধিকাংশ শরণার্থীই ‘ইউরোপ’ বিষয়ে জানতে আগ্রহী। এমনকি তারা কোন রাস্তা দিয়ে ইউরোপে প্রবেশ করলে সুবিধা হবে সেই বিষয়গুলোও গুগলে অনুসন্ধান করছে।

এছাড়া ‘গ্রিস মানচিত্র’ থেকে শুরু করে ‘তুরস্ক’ এবং ‘জার্মানি’র মানচিত্র পর্যন্ত নিয়মিত অনুসন্ধান করে প্রিন্ট দেয়া হয়। গুগল আরও জানায়, সিরীয়দের মধ্যে বিশেষ করে ‘ইদ্রিন, ইজমির’ নামের দুই তুর্কি শহর সম্পর্কে আগ্রহ সবচেয়ে বেশি। কারণ এই দুটো শহর দিয়েই মূলত সিরিয়ার অধিকাংশ শরণার্থীরা ইউরোপের বিভিন্ন দেশে যেতে পারে। এছাড়া এই শহরটিকে কেন্দ্র করেই বর্তমান যুদ্ধের বাজারে মানবপাচারকারীরা ব্যাপক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।

সিরীয়দের মধ্যে আন্তর্জাতিক সংবাদ নজরে রাখার প্রবণতা সবচেয়ে বেশি এই মুহূর্তে। কারণ যখনই হাঙ্গেরি শরণার্থী নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে সীমান্ত বন্ধ করে দেয়, তখনই রাতারাতি গুগলেও হাঙ্গেরি সম্পর্কে অনুসন্ধান অনেক কমে যায়। এখন পর্যন্ত সিরীয়দের মাঝে গুরুত্বপূর্ণ দেশ হলো তুরস্ক, গ্রিস, জার্মানি এবং যুক্তরাজ্য। এক ইন্টারনেটকে ভর করে হাজার হাজার সিরীয় নিজেদের জীবনকে ঝুঁকিতে ফেলে সাগর পাড়ি দিচ্ছে একটু নিরাপদ জীবনের আশায়।






মন্তব্য চালু নেই