মেইন ম্যেনু

গুগল গাড়ির দূর্ঘটনা ‘আশ্চর্যজনক নয়’

চলতি বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি দূর্ঘটনার কবলে পড়ে মার্কিন সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগলের স্ব-চালিত গাড়ি ‘গুগল কার’। এটিই কম্পিউটার নিয়ন্ত্রণ ত্রুটিজনিত কারণে গুগল গাড়ির প্রথম দূর্ঘটনা। তবে, স্বস্তির বিষয় হলো চলতি বাসের সঙ্গে এই দূর্ঘটনায় হতাহতের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

গুগল গাড়ির এই দূর্ঘটনাকে স্বাভাবিকভাবেই দেখছেন দেশটির যোগাযোগ সচিব অ্যান্থনি ফক্স। দূর্ঘটনা বিষয়ে ফক্স বিবিসিকে জানান, বাসের সঙ্গে গুগল গাড়ির দূর্ঘটনা কোন ‘আশ্চর্যের’ ব্যাপার নয়। তার মতে দূর্ঘটনা যে কোনো সময়ই ঘটতে পারে। কিন্তু সে কারণে আধুনিক প্রযুক্তিকে নিখুঁতের বিপক্ষে দাঁড়ানো উচিত নয়। তিনি আরও জানান প্রযুক্তিগত এই দূর্ঘটনা মানবসৃষ্ট দূর্ঘটনার তুলনায় অতি নগন্য।

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে স্মার্ট প্রযুক্তি বিষয়ক ‘সাউথ বাই সাউথ ইন্টার‌্যাক্টিভ ফেস্টিভাল’-এ অংশগ্রহণকালে ফক্স তার ওই মন্তব্য জানান। এই ফেস্টিভালে তিনি ৭টি শহরকে ‘স্মার্ট’ প্রযুক্তি প্রতিযোগিতার শেষ স্তরে পৌঁছানোর ঘোষণা দেন। এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শহরকে সরকারের পক্ষ থেকে ৪ কোটি মার্কিন ডলার পুরষ্কার দেওয়া হবে। শেষ পর্যায়ে পৌঁছানো ৭টি শহর হল অস্টিন, কলোম্বাস, ডেনভার, ক্যানসাস সিটি, পিটসবার্গ, পোর্টল্যান্ড এবং স্যান ফ্রান্সিসকো।

ওই অনুষ্ঠানে ফক্স স্বীকার করেন, স্মার্ট প্রযুক্তি কিছু মানুষকে কর্মহীন করবে। চালকবিহীন গাড়ি নিয়ে তিনি বলেন, “চালকবিহীন প্রযুক্তি অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ সম্ভাবনাকে উপস্থাপন করে। এটা এখন আমার কাছে অস্পষ্ট, ঠিক কীভাবে এটি ভবিষ্যতকে উন্মোচন করবে।”মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাস্তায় চালকবিহীন গাড়ির ব্যবহার বাড়াতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন ফক্স। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার তত্ত্বাবধানে সারাদেশেই স্বচালিত গাড়ি চালনার নীতিমালা প্রণয়ন প্রকল্প চালু করা হয়েছে। এই প্রকল্পে মোট ব্যয় হিসাব করা হয়েছে ৪০০ কোটি মার্কিন ডলার।






মন্তব্য চালু নেই