মেইন ম্যেনু

গুলশানের সেই রেস্টুরেন্টে বিদেশীরা ভিড় করতো সকাল ও রাতে

ঢাকার গুলশানে জঙ্গীরা যে রেস্টুরেন্টে আক্রমণ করে বেশ কিছু মানুষকে জিম্মি করে রেখেছে সেই রেস্টুরেন্টে বেশ কয়েকবারই গিয়েছিলেন ওই সড়কেরই একটি বাসার অধিবাসী কাজী মোহাইমেন।

তিনি বলছেন ৭৯ নম্বর সড়কের শেষ দিকে ওই রেস্টুরেন্টটি ছিল একটি চমৎকার সাজানো গোছানো রেস্টুরেন্ট।

বিবিসি বাংলাকে তিনি বলেন, “আমার দেখা রেস্টুরেন্ট গুলোর মধ্যে এটি অন্যতম সেরা, অসাধারণ”।

তার বর্ণনা অনুযায়ী রেস্টুরেন্টটির মূল প্রবেশদ্বার একটি।

প্রবেশের পর একদিকে চমৎকার খোলা জায়গা আর সোজা গেলে বেকারি।

এর ডান দিকে রেস্টুরেন্ট যেটার বাইরের দিকেও বসার জায়গা আছে।

আবার বাইরের অংশে ঘাসের ওপরও বসার ব্যবস্থা রয়েছে সেখানে।

এছাড়া ভেতরের দিকে ৫০/৬০ জনের বসার জন্য রয়েছে সুবিন্যস্ত চেয়ার টেবিল।

আর দ্বিতল ভবনের ওপরের তলায় অফিস ছিলো বলে ধারণা করা হচ্ছে।

একটি বহুজাতিক কোম্পানির একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা বলছেন তিনি অনেকবারই ওই রেস্টুরেন্টে খেতে গিয়েছেন।

তার বর্ণনায় সকালের দিকে প্রাত:রাশে বেকারিতে ভিড় বেশি হতো এবং বিদেশীরাই বেশি ভিড় করতো সেখানে।

আর রাতে ভিড় হতো রেস্টুরেন্টে।

তিনি বলেন কূটনীতিকদের অনেকে এবং বহুজাতিক কোম্পানির পদস্থ লোকজন যেতো পরিবার সহ।

তাদের বাচ্চাদের রেস্টুরেন্টের বাগানে খেলতে দেখা যেতো।

তার মতে ঢাকার পাঁচ তারকা হোটেলগুলোর বাইরে এই হোটেলটিতেই বিদেশীদের বেশি দেখা যেতো, বিশেষ করে সকালে প্রাত:রাশ ও রাতের খাবার থেকে। -বিবিসি বাংলা






মন্তব্য চালু নেই