মেইন ম্যেনু

গুলি-বোমার শব্দ ছাড়া ঘুম

সিরিয়ায় দীর্ঘ পাঁচ বছর গৃহযুদ্ধ চলার পর গত মধ্যরাত থেকে একটি সাময়িক যুদ্ধবিরতি কার্যকর হয়েছে। আর পাঁচ বছরে এই প্রথম একটি ঘুমন্ত রাত পেলো সিরিয়ানরা। যুদ্ধবিরতি কার্যকর হওয়ার পর এদিন কোনো গুলি বা বোমার শব্দ শোনা যায়নি।

সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলো এটি মেনে চললে এটাই হবে বিবদমান পক্ষগুলোর মধ্যে লড়াইয়ের প্রথম বিরতি। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ সব পক্ষকেই যুদ্ধবিরতি চুক্তির শর্তাবলী মেনে চলার আহবান জানিয়েছে।

সংস্থাটি ইতোমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার তৈরি এই যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব সর্বসম্মতভাবে গ্রহণ করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা অবশ্য সিরিয়ার সরকার ও রাশিয়াকে সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন সারা বিশ্ব বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করবে।

তবে যুদ্ধবিরতি কার্যকরের সময়সীমার আগের দিন অর্থাৎ শুক্রবারেও রাশিয়ান বিমানগুলো সিরিয়ার বিদ্রোহীদের অবস্থানের ওপর জোরদার আক্রমণ চালিয়েছে।

সিরিয়ার বিষয়ে জাতিসংঘের বিশেষ দূত স্ট্যাফান ডি মিসটুরা বলেছেন যুদ্ধবিরতি মেনে চললে আগামী ৭ই মার্চ থেকে শান্তি আলোচনা আবার শুরু হবে।

জাতিসংঘের হিসেব মতে, গত পাঁচ বছরের গৃহযুদ্ধে সিরিয়ায় আড়াই লাখের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। তবে একটি স্বাধীন সংস্থার মতে এর পরিমাণ জাতিসংঘ হিসেবের দ্বিগুণ। এই দেশ ছাড়া হয়েছেন লাখ লাখ সিরিয়ান।






মন্তব্য চালু নেই