মেইন ম্যেনু

গৃহকর্ত্রী হত্যায় স্বামী-স্ত্রী-ছেলের মৃত্যুদণ্ড

গাজীপুর জেলার খাইলকুর এলাকায় চুরির ঘটনা দেখে ফেলায় গৃহকর্ত্রীকে হত্যার অপরাধে একই পরিবারের তিনজনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া প্রত্যেককে আরো ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

বুধবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত ১ এর বিচারক মো. ফজলে এলাহি ভূঁইয়া এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলার ভবনাথপুর গ্রামের মুনসুর আলীর ছেলে সিদ্দিক ভাণ্ডারী, তার স্ত্রী আয়েশা খাতুন ও তাদের ছেলে তারেক ওরফে মুরাদ হোসেন। আসামিরা সবাই পলাতক রয়েছেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গাজীপুর মহানগরীর খাইলকুর এলাকার জমির হোসেনের পাশের বাড়িতে ওই আসামিরা ভাড়া থাকতো। গত ২০০৮ সালের ১৪ মে বিকেলে আসামিরা জমির হোসেনের বাড়িতে চুরির উদ্দেশ্যে ভেতরে ঢোকে। তারা ঘরের আলমারি থেকে স্বর্ণালঙ্কার বের করার সময় জমির হোসেনের স্ত্রী সাফিয়া বেগম তা দেখে ফেলেন। এ কারণে আসামিরা সাফিয়াকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

পরে এ ঘটনায় জমির হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে জয়দেবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তদন্ত করে ওই তিনজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। আদালতে উভয়পক্ষের শুনানি ও যুক্তিতর্ক শেষে আজ তিনজনের ফাঁসির আদেশ দেন।

আদালতে সরকার পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট আমজাদ হোসেন কাজল ও আসামিরা পলাতক থাকায় তাদের পক্ষে সরকার নিয়োজিত আইনজীবী অ্যাডভোকেট তমিজ উদ্দিন মামলা পরিচালনা করেন।






মন্তব্য চালু নেই