মেইন ম্যেনু

গৃহকর্মীকে ধর্ষণের পর হত্যা: কান্নাকাটি করলেও মামলা নেয়নি পুলিশ

রাজধানীর মিরপুরে ধর্ষণের পর গৃহকর্মীকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। সরকারি কর্মকর্তার ছেলের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তুলে ওই গৃহকর্মীর স্বজনেরা রাজধানীর কাজীপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকার সড়ক অবরোধ করেন।

আজ সোমবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত কাজীপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সড়ক অবরোধ করেন নিহতের ক্ষুব্ধ স্বজনরা।

ওই গৃহকর্মীর নাম জানিয়া বেগম (১২)। সে মিরপুর-১৩ নম্বরে সরকারি কর্মকর্তাদের আবাসিক এলাকা ন্যাম গার্ডেনের তিন নম্বর ভবনের ৪০৩ বি-তে কাজ করত।

জানিয়ার মা ফুল বানু জানান, তিনি নিজে ওই বাসায় কাজ করতেন। কয়েক দিন ধরে অসুস্থ থাকায় মেয়ে জানিয়াকে ওই বাসায় কাজে পাঠান। পাঁচ মেয়ে ও এক ছেলের মধ্যে জানিয়া তাঁর দ্বিতীয় সন্তান। গতকাল রোববার সেনপাড়ার ভাড়া বাসা থেকে কাজ করতে মেয়ে ন্যাম গার্ডেনের ওই বাসায় যায়। পরে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশ তাঁকে খবর দিয়ে ওই বাসায় যেতে বলে। সেখানে গিয়ে তিনি দেখেন, মেয়ের লাশ পড়ে আছে। মেয়ের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন।

ফুল বানুর অভিযোগ, ওই বাসার সরকারি কর্মকর্তার ছেলে তাঁর মেয়েকে ধর্ষণের পর মেরে ফেলেছে। তিনি দাবি করেন, তিনি পুলিশের কাছে কান্নাকাটি করেছেন, কিন্তু পুলিশ মামলা নেয়নি। পুলিশ লাশ থানায় নিয়ে যায়। সেখানে ময়নাতদন্তের পর লাশ আজ তাঁদের কাছে হস্তান্তর করে। এরপর তাঁরা ওই লাশ নিয়ে কাজীপাড়ায় মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বর থেকে কাজীপাড়া পর্যন্ত রোকেয়া সরণি অবরোধ করেন।

শাহাবুদ্দিন নামের এক ট্রাফিক পরিদর্শক বলেন, আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে অবরোধকারীরা সড়ক থেকে সরে গেছেন।






মন্তব্য চালু নেই