মেইন ম্যেনু

গৃহকর্মীর কাছ থেকে টাকা ধার নিতেন অভিনেত্রী প্রত্যুষা

অভিনেত্রী প্রত্যুষা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যুর ঘটনায় প্রায় প্রতিদিনই উঠে আসছে নতুন তথ্য। সম্প্রতি জানা গেলো, তিনি প্রায়ই বাড়ির গৃহকর্মীর কাছ থেকে টাকা ধার করতেন। অথচ প্রত্যুষার ব্যাংক ব্যালেন্স বেশ ভালোই ছিল।

ওষুধ কেনার জন্য বা ক্যাব ভাড়ার মতো ছোটোখাট বিষয়ে প্রত্যুষা প্রায়ই তার কাছ থেকে টাকা ধার নিতেন বলে জানিয়েছেন গৃহকর্মী রেনু সিংহ নিজেই।

টাইমস অফ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত তিন মাস ধরে প্রত্যুষার গুঁরগাওয়ের বাড়িতে কাজ করছিলেন ওই নারী। সেখানেই তিনি থাকতেন বলে জানা গেছে।

রেনু বলেন, প্রত্যুষা তাকে দিদি বলে ডাকতেন। প্রত্যুষার মা মুম্বাই থেকে চলে যাওয়ার পর তার সঙ্গে সম্পর্ক ঘনিষ্ঠ হয়। রাহুল প্রত্যুষার মাকে একেবারেই পছন্দ করতেন না বলে দাবি করেছেন রেনু। আর সে কারণেই প্রত্যুষার মা তার উপরেই নজরদারির ভার দিয়ে গিয়েছিলেন এবং নিয়মিত ফোন করে খবরাখবর নিতেন।

রেনুর দাবি, প্রত্যুষা নিয়মিত রাহুলের জন্য রান্না করতেন। এমনকী তার জামাকাপড়ও ধুয়েকেচে দিতেন। তবে রাহুলের আগের বিয়ে সম্পর্কে জেনে গিয়েছিলেন প্রত্যুষা। এ নিয়ে নাকি দু’জনের মধ্যে গোলমালও হয়।

রেনু সিংহ পুলিশকে এও জানিয়েছেন, মাঝরাতে মাঝেমধ্যেই প্রত্যুষা-রাহুলের ঘর থেকে চিৎকার শোনা যেত। রাহুলের অবর্তমানে তিনি প্রত্যুষাকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করে জানতে পারেন, প্রত্যুষার প্রাক্তন প্রেমিকের সঙ্গে তার সম্পর্ক রয়েছে, এই অভিযোগে অশান্তি করেন রাহুল। রাহুল রাজ সিংহের সঙ্গে ধস্তাধস্তির পর তিনি প্রত্যুষার শরীরে আঘাতের চিহ্নও দেখেছিলেন।

এই গৃহকর্মী আরো জানান, তিনি একাধিকবার প্রত্যুষাকে বলেন এই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে যেতে। কিন্তু এতে তার পরিবারের বদনাম হওয়ার কথা ভেবে পিছিয়ে আসেন প্রত্যুষা। এমনকী প্রত্যুষার পাসবুক ও ডেবিট কার্ড রাহুলের থেকে ফেরত চাওয়ার কথাও বলেন তিনি। যদিও কিছু কারণে তা সম্ভব নয় বলে রেনুকে জানিয়েছিলেন প্রত্যুষা।






মন্তব্য চালু নেই