মেইন ম্যেনু

গেইল থাকবেন না, আগে থেকেই জানতেন সাব্বিররা

কোয়ালিফায়ারের মতো মহাগুরূত্বপূর্ণ ম্যাচে বরিশাল বুলসের সবচেয়ে বড় ভরসা হতে পারতেন যিনি, সেই ক্রিস গেইলকেই ছাড়াই মাঠে নামে বরিশাল বুলস। শহীদ আফ্রিদি, কুমার সাঙ্গাকারাদের বিদায়ের পর জ্যামাইকান এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যানই ছিলেন বিপিএলের অন্যতম আকর্ষণ। আর এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে কিনা তাকেই খেলাচ্ছে না বরিশাল!

গেইলের না খেলার ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বরিশালের ফ্র্যাঞ্চাইজির পক্ষ থেকে জানানো হয় পুরনো পিঠের ইনজুরিটা ভোগাচ্ছিল গেইলকে। আর আসন্ন বিগ ব্যাশে মেলবোর্ন রেনেগেডজের সাথে চুক্তিবদ্ধ হওয়ায় গেইল ঝুঁকি নিতে চাচ্ছিলেন না। আর তারা এই খবরটি রোববার সকালেই জানতে পারে ফ্র্যাঞ্চাইজি।

কিন্তু বরিশালের অন্যতম তারকা খেলোয়াড় সাব্বির রহমান জানালেন তারা আগে থেকেই জানতেন গেইল খেলবেন না।

গেইলের না খেলার প্রসঙ্গে সাব্বির বললেন, ‘গেইল যে এই ম্যাচ খেলবে না, এটা আমরা গত ম্যাচের পর থেকেই জানতাম।’

বরিশালের ম্যানেজার সাইদুল ইসলাম গেইলের না খেলার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বলেন, ‘আজ সকালে হঠাৎ করেই সে বলল, তার পিঠে ব্যথা। সে কারণে এই ম্যাচে খেলতে পারবে না। যেহেতু মাত্রই সে চোট থেকে ফিরেছে, আমরাও তাকে জোর করিনি। গেইলের ইচ্ছা বিগ ব্যাশের আগে সেখানে পিঠের ব্যথার চিকিৎসা করাবেন।’

সাব্বিরের বক্তব্যের পর গেইলের হঠাৎ করেই বিমান ধরার ব্যাপারে যে ব্যাখ্যা বরিশাল দিয়েছিলো তা এখন প্রশ্নের মুখে!

ফ্র্যাঞ্চাইজি কোন খেলোয়াড়কে খেলাবে, আর কোন খেলোয়াড়কে খেলাবে না সেটা নিয়ে প্রকাশ্যে কথা বলতে বা তা নিয়ে তদন্ত করতে পারে না বিপিএলের গভর্নিং কাউন্সিল। তবে, আগের দুই আসরের অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে ক্রিস গেইলের না খেলার ঘটনায় একটু নড়েচড়ে বসেছে বিপিএলের গভর্নিং কাউন্সিল।

শেষ ম্যাচে রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে না খেলেই বিমান ধরার ঘটনায় ‘অনেকরকম’ সন্দেহের উদ্রেক হচ্ছে বিসিবির। আর সেকারণেই ব্যাপারটা নিয়ে তদন্ত করতে চলেছে তারা।






মন্তব্য চালু নেই