মেইন ম্যেনু

গৌরনদীতে অজ্ঞানপার্টির আতংকে রাত জেগে পাহাড়া

রাতের আধাঁরে বিষাক্ত প্রে দিয়ে পরিবারের সবাইকে অজ্ঞান করে সর্বস্ত্র লুটে নেয়ার একাধিক ঘটনা ঘটেছে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বার্থী ইউনিয়নের সংখ্যালঘু অধ্যুষিত বাঙ্গিলা গ্রামে। এছাড়াও এক নারীর সম্ভ্রব্যহানীরও অভিযোগ উঠেছে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে।

গত একমাস থেকে প্রায় প্রতিদিন রাতেই ওই গ্রামের বিভিন্ন গৃহে সংঘবদ্ধ চক্রের হানা দেয়ার ঘটনায় গ্রামবাসীর মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পরে। ফলে গত বৃহস্পতিবার রাত থেকে এলাকাবাসী লাঠিসোঠা নিয়ে রাত জেগে পাহাড়া বসিয়েছেন।

ওই গ্রামের বাসিন্দা লক্ষন কুন্ডু জানান, গত ৯ আগস্ট গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা তার বসত ঘরের টিনের বেড়া কেটে বিষাক্ত স্প্রে ছিটিয়ে পরিবারের সবাইকে অচেতন করে নগদ অর্থ, স্বর্র্ণালংকার সহ প্রায় তিন লাখ টাকার মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। একই গ্রামের রনজিত নন্দী জানান, এর কিছুদিন পূর্বে একইভাবে আমারসহ আরো দু’টি পরিবারের সবর্স্ব লুটে নেয় দুর্বত্তরা।

এছাড়া স্বপন দাস, মিহির দাস ও অলিল মোল্লার ঘরের বেড়া কাটার সময় পরিবারের লোকজন টের পেয়ে ডাকচিৎকার শুরু করলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে সংখ্যালঘু পাড়ার একাধিক বাসিন্দারা জানান, এছাড়াও এক নারীর সম্ভ্রবহানীর ঘটনাও ঘটেছে। এঘটনার পর থেকে গ্রামবাসী নিরাপত্তাহীনতাসহ চরম আতংকের মধ্যে দিন কাটাচ্ছের।

বার্থী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সদস্য নজরুল ইসলাম লাভলু জানান, সংখ্যালঘু অধ্যুষিত বাঙ্গিলা গ্রামে অজ্ঞানপার্টির দৌড়াত্ম বৃদ্ধি পাওয়ায় সংখ্যালঘু পরিবারের মাঝে আতংক দেখা দিয়েছে। ফলে গত বৃহস্পতিবার মাইকিং করে এলাকাবাসীদের নিয়ে সভা করে প্রতি ঘর থেকে একজন করে সদস্য নিয়ে পাহাড়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

রাত জেগে পাহাড়া দেয়া ওই গ্রামের উত্তম নন্দী, তাপস মন্ডলসহ একাধিক ব্যক্তিরা বলেন, আমার নিজেদের নিরাপত্তার জন্য রাত জেগে পাহাড়া দিচ্ছি। গৌরনদী থানার ওসি মো. আলাউদ্দিন মিলন বলেন, ঘটনার পর আমরা কমিউনিটি পুলিশ ও এলাকাবাসীদের নিয়ে সভা করে পাহাড়ার ব্যবস্থা করেছি।






মন্তব্য চালু নেই