মেইন ম্যেনু

গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি গণবিরোধী : খন্দকার মাহবুব

জনগণের ভোগান্তির কথা চিন্তা না করে, জাতীয় অর্থনীতির ওপর বিরুপ প্রভাবের বিষয়টি বিবেচনা না করে গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর পদক্ষেপ নেয়া দলীয় ব্যবসায়ীদের অবৈধ মুনাফা বৃদ্ধির পায়তারা বলে অভিযোগ করেছেন সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন। পাশাপাশি গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি বাতিলের জোড় দাবিও জানান এই আইনজীবী।

আজ রবিবার দুপুরে সুপ্রিমকোর্ট বারের শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান তিনি। সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতি এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। খন্দকার মাহবুব বলেন, ‘যেখানে বিশ্ববাজারে জ্বালানী তেলের দাম, উৎপাদন খরচ কমে এসেছে প্রায় তিনগুন সেখানে বিদ্যুৎ-গ্যাসের দাম বাড়ানো সরকারী দলের দুর্নীতির রসদ যোগানো এবং দলীয় ব্যবসায়ীদের পকেট ভারী করার প্রক্রিয়া ছাড়া আর কিছুই নয়।’

প্রসঙ্গত: ২৭ আগস্ট বাংলাদেশ এর্নাজি রেগুলেটরী কমিশন গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ২ দশমিক ৯৩ শতাংশ এবং গ্যাসের দাম ২৬ দশমিক ২৯ শতাংশ দাম বাড়ানো হয়। ১ সেপ্টেম্বর থেকে তা কার্যকর ঘোষণা করা হয়।

সরকার দরপত্র ছাড়া সমঝোতার মাধ্যমে অদক্ষ ও অযোগ্য প্রতিষ্ঠানের সাথে কুইক রেন্টাল বিদ্যু কেন্দ্র স্থাপনের চুক্তি স্বাক্ষর করেছে এমন অভিযোগ করে খন্দাকার মাহবুব হোসেন আরো বলেন, ‘যেখানে কুইক রেন্টাল পদ্ধতিতে কিনে সরকার ভূর্তকি দিয়ে, দিয়ে দাম বাড়িয়ে, সময়মত বিদ্যু কেন্দ্র স্থাপন না করার, পূর্ন উৎপাদনের যাওয়ার কারণে কোটি কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হচ্ছে।

সেখানে উচ্চ মূল্যে বিদ্যু কেনার প্রক্রিয়া কেন নবায়ন হচ্ছে। কুইক রেন্টাল এর কারণে লোকসানের গ্লানি এত ভয়াবহ পর্যায়ে পৌঁছেছে। কর্মকর্তা কর্মচারীদের ফান্ড পর্যন্ত ভাঙ্গা হচ্ছে।’ এসময় সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকনসহ অনেক আইনজীবী নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই