মেইন ম্যেনু

গ্রেফতার এড়াতে রিজভীর এ কেমন কৌশল

গ্রেফতারি পরোয়ানার পরও বেশ কয়েকটি কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছিলেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তবে গত শুক্রবার (২৯ জুলাই) বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে প্রবেশের পর সেখান থেকে আর বের হচ্ছেন না তিনি। এদিকে, গ্রেফতারি পরোয়ানা এড়াতে রুহুল কবির রিজভীর এমন কৌশল নিয়ে আলোচনা চলছে রাজনৈতিক মহলে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রায় ৩৬ ঘণ্টা ধরে স্বেচ্ছায় গুলশান কার্যালয়ে অবস্থান করছেন রিজভী। তবে শুক্রবার রাতে তিনি অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছেন বলে দাবি করেছিলেন।

রিজভীর ঘনিষ্ট স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় নেতা আমিনুল ইসলাম শনিবার বলেন, তারা এখনো গুলশান কার্যালয়ে অবস্থান করছেন। পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন হয়নি।

এদিকে, হঠাৎ রিজভীর এমন কৌশলে হতভম্ব হয়েছেন অনেকে। নাম প্রকাশ না করার শর্তে মহানগর পর্যায়ের এক নেতা বলেন, বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে হামলা-মামলা, গ্রেফতারি পরোয়ানা নিত্য নৈমিত্তিক বিষয়। কিন্তু এর জন্য কার্যালয়ে লুকিয়ে থাকার কৌশল নেতাকর্মীরা ভালো দৃষ্টিতে গ্রহণ করবে না।

তার মতে, প্রকৃতির নিয়ম অনুসারে কারো জন্য শুন্যস্থান অপূর্ণ থাকে না। রিজভী ভাই অাটক হলে ম্যাডামের নির্দেশ অনুযায়ী অভিজ্ঞ অন্য কেউ দায়িত্ব পালন করবেন। কিন্তু তাকে কার্যালয়ে বসে না থেকে বের হতে হবে।

দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর প্রেসক্লাবে লুকিয়ে থেকেও নিজেকে রক্ষা করতে পারেননি বলেও উল্লেখ্য করেন তিনি।

বিএনপির অঙ্গ সংগঠনের এক নেতা মনে করেন, নয়াপল্টন কার্যালয় নিজের মতো করে গুছিয়েছেন রিজভী। কিন্তু গুলশান কার্যালয়ে তেমন অবস্থান নেই তার। এ সুযোগে গুলশান কার্যালয়ে ভীত মজবুত করতে হয়তো অভিজ্ঞ রিজভী ভাই এমন কৌশল অবলম্বন করেছেন।

তবে এসব বিষয়ে রিজভীর সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

এদিকে, গুলশানে রিজভী অবরুদ্ধ এমন সংবাদ প্রচার হওয়ার পর খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে শনিবার অতিরিক্ত কোনো পুলিশ বাহিনী মোতায়ন করা হয়নি। এমনকি সাদা পোশাকদারী গোয়েন্দাসহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থার অতিরিক্ত কর্মকর্তাকেও কার্যালয়ের আশপাশে দেখা যায়নি।

উল্লেখ্য, রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী থানায় নাশকতার অভিযোগে করা মামলায় গত সোমবার রিজভীসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। এরপর তিনি প্রকাশ্যেই ছিলেন। কিন্তু শুক্রবার একটি সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দিতে তিনি গুলশানে খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে যান। এরপর থেকে তিনি সেখানেই অবস্থান করছেন।






মন্তব্য চালু নেই