মেইন ম্যেনু

ঘন ঘন রঙ বদলায় যে পাহাড়! (ভিডিওসহ)

প্রকৃতি কত যত্ন করেই না মানুষের জন্য সাজিয়ে রেখেছে অবাক হবার মত কতশত নিদর্শন । প্রাণিজগতের অদ্ভুত এক প্রাণী গিরগিটি । রং বদলাতে পারে যখন খুশি তখন । সাগর জলের স্কুইডও পারে রং নিয়ে তামাশা করতে । কিন্ত এমন যদি বলা হয় আস্ত এক পাহাড় জুড়ে চলে এই রঙ বদলের খেলা ? বিস্ময়ের সীমারেখা কোথায় যেতে পারে ! ‘আইয়ারস রক’ নামের এই পাহাড়টির রয়েছে অদ্ভুত রং বদলানো বৈশিষ্ট্য ।

আইয়ারস রকের ভৌগলিক অবস্থান অস্ট্রেলিয়ায় । বৈচিত্রপূর্ণ বৈশিষ্ট্যের জন্য অনেকেই একে ম্যাজিক পাহাড়ও বলে থাকেন । দেখতে ডিমের মত আকৃতির এ পাহাড়টির উচ্চতা ৩৪৮ মিটার, দৈর্ঘ ৭ কিলোমিটার এবং প্রস্হ ২.৪ কিলোমিটার । পাহাড়টির স্বাভাবিক রং লাল তবে সুর্যোদয় ও সুর্যাস্তের সময় ঘটে অদ্ভুত যত ঘটনা । সকালে সুর্যের আলোর বিচ্ছুরন পাহাড়ের উপর পড়লেই মনে হয় যেন আগুন ধরেছে এর গায়ে । বেগুনী ও গাঢ় লাল রংয়ের শিখা বের হয়ে আসে পাহাড় থেকে । কেবল সুর্যোদয় কিংবা সুর্যাস্ত নয় সারাদিন জুড়ে চলে রঙ বদলের খেলা ।

প্রথমে হলুদ থেকে কমলা, পরে লাল ও মাঝে মাঝে বেগুনী কখনোবা গুমোট কালো । অসম্ভব রহস্যের আনাগোনা পাহাড়টি জুড়ে । রং রহস্যের আইয়ারস রক এর মাধুর্য মুগ্ধ করে যেকোন মানুষকেই । অদ্ভুত এ পাহাড়টি সম্পূর্নই একটি প্রস্তর খন্ড । এর গঠনটাই অদ্ভুত । সুর্যরশ্মির আপতন কোণের পরিবর্তনের সাথে পাল্লা দিয়ে এর রঙ পরিবর্তন হয় । সুর্যোদয় কিংবা সুর্যাস্তের সময় সূর্য রশ্মিতে লাল ও কমলা রঙের আধিক্য থাকে । ফলে এ সময় পাহাড়টিকে লাল কিংবা কমলা মনে হয় । দুপুরের দিকে সূর্য রশ্মিতে অন্যান্য রঙের প্রাধান্য থাকে তাই ক্ষনেক্ষনে পাহাড় রঙ বদলায় । অস্ট্রেলিয়ান সরকার পাহাড়টি পর্যটকদের অবলোকনের সুবিধার্থে এর কাছাকাছি ৪৮৭ বর্গমাইল এলাকা জুড়ে গড়ে তুলেছে মাউন্ট ওগলা ন্যাশনাল পার্ক ।

স্থানীয় আদিবাসীদের বিশ্বাস পাহাড়টিতে কোন দেবতা আছেন বলেই ঘন ঘন এর রং পরিবর্তিত হয় । তারা সেই দেবতার উদ্দেশ্যে পাহাড়টিকে পূজা করে ।






মন্তব্য চালু নেই