মেইন ম্যেনু

ঘরের যেসব জিনিস অবশ্যই প্রতিদিন পরিষ্কার করা উচিৎ

ঝকঝকে ঘরদোর সবার পছন্দ হলেও ঘর পরিষ্কার করার কাজটা আদতে কারোই পছন্দ নয়। সপ্তাহে একদিন ঘর পরিষ্কার করতেও অনেকের অনীহা দেখা যায়। কিন্তু কিছু কিছু জিনিস আছে যা পরিষ্কার করার দরকার হতে পারে প্রতিটি দিন। হ্যাঁ, যতই কষ্ট হোক না কেন, এসব জিনিস আগামীকাল বা শুক্রবার পরিষ্কার করবেন- এমন চিন্তা না করাই ভালো। অল্প সময়ের মাঝেই এসব জিনিস পরিষ্কার করে ফেলতে পারবেন আপনি। এতে সপ্তাহের শেষে বিরাট কাজের বোঝা মাথায় নিতে হবে না আপনাকে।

১) বাড়ির মূল দরজার সামনের অংশ
বাড়িতে ঢুকেই প্রথমে এই জায়গাটি চোখে পড়ে সবার- আপনার চোখেও পড়ে, আবার মেহমানের চোখেও পড়ে। এ কারণে এই জায়গাটি গুছিয়ে পরিষ্কার করে রাখুন প্রতিদিন। এখানে রাখা জুতো-স্যান্ডেল সাজিয়ে রাখুন। কোনো ব্যাগ বা ময়লার বাস্কেট থাকলে সেটাকেও পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন। ধুলো যেহেতু এখান দিয়েই ঘরে প্রবেশ করে তার জন্য নিয়মিত ঝাড়ু দিয়ে এই ধুলো ঝেড়ে ফেলুন।

২) ডিশ টাওয়েল
রান্না করছেন, বাসন-কোসন ধোয়ামোছা করছেন এই ফাঁকে ভেজা হাত একটা টাওয়েলে মুছে নিলেন। এই টাওয়েল দিনের পর দিন ময়লা অবস্থায় রান্নাঘরে ফেলে রাখবেন না। এতে প্রচুর ব্যাকটেরিয়া জমে থাকে এবং বংশবিস্তার করে। প্রতিদিন এই টাওয়েল চেঞ্জ করুন এবং ময়লাটা গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন ভালো করে।

৩) স্পঞ্জ
সম্ভবত আপনার রান্নাঘরের সবচাইতে নোংরা জিনিস এটি। এর থেকে ময়লা যথাসম্ভব দূর করার জন্য আপনি মাইক্রোওয়েভটিকে ব্যবহার করতে পারেন। স্পঞ্জটিকে পরিষ্কার করে এরপর ভেজা অবস্থাতেই ওভেনে এক মিনিট হাই হিটে গরম করে নিন। এছাড়া গরম পানিতে পাঁচ মিনিট ফুটিয়ে নিলেও পরিষ্কার হতে পারে।

৪)কিচেন এবং বাথরুম কাউন্টার
কাউন্টার অর্থাৎ যে কোনো শেলফ বা টেবিলের উপরিভাগ যেখানে আপনি খাবার রাখছেন, কাটাকুটি বা ধোয়ামোছার কাজ করছেন, বা বাথরুম ও টয়লেটের বিভিন্ন শেলফ- এগুলো একদম নিয়ম করে প্রতিদিন পরিষ্কার করুন যাতে আপনাকে জীবাণুর শিকার হতে না হয়। এসব জায়গার সিঙ্ক এবং দরজার হাতলগুলোও পরিষ্কার করে নিন। মেঝে ময়লা থাকলে দ্রুত ঝাড়ু অথবা মপ দিয়ে পরিষ্কার করে নিন।

৫) রিমোট কন্ট্রোল ও ফোন
প্রতিদিন কয়েকবার হাত-বদল হওয়া এসব রিমোট প্রচুর ময়লা ও জীবাণু ধরে রাখে। ফোনের ক্ষেত্রেও এ কথা প্রযোজ্য, বিশেষ করে আপনার যদি ফোন নিয়ে বাথরুমে যাবার অভ্যাস থাকে। এ কারণে জীবাণুনাশক স্প্রে দিয়ে প্রতিদিন এ দুটো জিনিস পরিষ্কার করে নিন।

৬) প্রতিদিনের ময়লা বাসন-কোসন
রান্নাঘর পরিষ্কার করার পাশাপাশি সিঙ্কে জমে থাকা প্রতিদিনের বাসন-কোসন পরিষ্কার করতে ভুলে যাবেন না যেন। এগুলো পরিষ্কার না করলে বিশ্রী দুর্গন্ধে ভরে যাবে রান্নাঘর। আপনি দরকারের সময়ে প্লেট-বাটি খুঁজে পাবেন না। আর দিনের শেষে বাড়ি ফিরে ময়লা সিঙ্ক দেখে তো মেজাজ খারাপ হতে বাধ্য। এ কারণে দিনেরটা দিনেই ধুয়ে ফেলুন, জমিয়ে রাখবেন না।

৭) নাইটস্ট্যান্ড বা বিছানার পাশের টেবিল
অনেকেই এক গ্লাস পানি, চশমা, ফোন এসব রাখেন বিছানার পাশের ছোট টেবিলে। এই টেবিল আপনার মাথার খুব কাছে থাকে। এখানে ধুলো-ময়লা জমার অর্থ হলো এগুলো খুব দ্রুত আপনার নাক-মুখে চলে আসতে পারে। অ্যাজমা রোগীদের জন্য এই টেবিল পরিষ্কার রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এছাড়াও আরও যেসব জিনিস পরিষ্কার করা দরকার প্রতিদিন

– মেয়েদের ব্যাগের তলা পরিষ্কার করা
– ময়লার ঝুড়ি প্রতিদিন খালি করে ফেলা
– প্রতিদিনের ময়লা কাপড় ছড়িয়ে না রেখে একটা ঝুড়িতে রাখা
– কফি মেকার থাকলে প্রতিদিন সেটাকে ধোয়া
– পোষা প্রাণী থাকলে তার লিটার বক্স প্রতিদিন পরিষ্কার করা






মন্তব্য চালু নেই