মেইন ম্যেনু

ঘরে বসেই তৈরি করুণ নিরাপদ শেভিং ক্রিম

ছেলেদের দাড়ি কামাতে শেভিং ক্রিম ব্যবহার করতে হয় কিন্তু এইগুলো সব সময় ত্বকে মানানসই হয় না যার ফএল ত্বকের নানান অসুখ হয়, ত্বক রুক্ষ ও অমলিন হয়ে পড়ে যার কারণে এলার্জিও হয়। তাই ঘরোয়া উপায়ে শেভিং ক্রিম বানিয়ে নিয়ে তা দিয়ে শেভ করতে পারেন। এতে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হবে না।

নিজে নিজে শেভিং ক্রমি বানানোর ২টি উপায় আছে। আসুন জেনে নেই কিভাবে শেভিং ক্রিম বানাবেন –

১। ব্লেন্ডিং পদ্ধতিঃ

এই উপায়ে সব উপকরণগুলো একসাথে মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিতে হয়। কি কি উপকরণ লাগবে তা দেখে নিন।

উপকরণঃ

দুই টেবিল চামচ নারিকেল তেল, দুই টেবিল চামচ শিয়া বাটার, দুই চা চামচ বেকিং সোডা, দুই টেবিল চামচ অলিভ অয়েল অথবা আমন্ড অয়েল, ১০ ফোঁটা ল্যাভেন্ডার এসেনশিয়াল অয়েল ও পাঁচ ফোঁটা পিপারমেন্ট এসেনশিয়াল অয়েল।

পদ্ধতি প্রক্রিয়াঃ

প্রথমে একটি প্যানে শিয়া বাটার ও নারিকেল তেল অল্প আঁচে গরম করুন। এবার এতে অলিভ অয়েল, ল্যাভেন্ডার এসেনশিয়াল অয়েল ও পিপারমেন্ট এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি একটি বোতলে ভরে ফ্রিজে রেখে দিন। এবার ফ্রিজ থেকে বের করে একটি ব্লেন্ডারে এর সঙ্গে বেকিং সোডা মিশিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করুন যতক্ষণ না পর্যন্ত নরম হয়। এবার আপনি এই মিশ্রণ শেভিং ক্রিম হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

২। সংরক্ষণ পদ্ধতিঃ

এই উপায়ে উপাদানগুলো একসাথে মিশিয়ে সংরুক্ষণ করতে হয়।

উপকরণঃ

দুই টেবিল চামচ অ্যালোভেরা রস, দুই টেবিল চামচ গ্লিসারিন, আট ফোঁটা টি ট্রি এসেনশিয়াল অয়েল, এক চা চামচ লবণ, আধা কাপ লিকুইড সোপ, আধা কাপ নারিকেল তেল, ১০ ফোটা এসেনশিয়াল অয়েল ও দুটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল।

পদ্ধতি প্রক্রিয়াঃ

প্রথমে একটি প্যানে গরম পানির মধ্যে লবণ মিশিয়ে নিন। এবার এতে সব উপকরণ দিয়ে ভালো করে নেড়ে নিন। ঘন হয়ে এলে একটি বোতলে ভরে রেখে দিন। যখন শেভ করবেন তখন বোতলে হালকা ঝাঁকি দিয়ে নিন।

ব্যস, এবার আপনি আপনার সুবিধা ও ইচ্ছামত যেকোন একটি পদ্ধতিতে ক্রিম বানিয়ে ব্যবহার করুন।






মন্তব্য চালু নেই