মেইন ম্যেনু

ঘাটাইলে ভূমিহীনদের বিরুদ্ধে বন্দোবস্ত বাতিলের অভিযোগ

টাংগাইলের ঘাটাইল উপজেলার সন্ধানপুর ইউনিয়নে ভূমি দস্যুরা নিজেদের জবর দখলকৃত মাপ জমি ছেড়ে যাওয়ার ভয়ে ভূমিহীনদের বন্দোবাহু বাতীল চেয়ে জেলা প্রশাশকের নিকট অভিযোগ  দাখিল করেছেন। জবরদখলকারীরাই বন্দোবস্ত বাতিলের আবেদন করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
ভূক্তভোগী ও স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, সরকারের পুনঃবাসন প্রক্রিয়া কুলষিত করতে মিথ্যা তথ্য দিয়ে যার ভূমিহীনদের বন্দোবস্ত বাতিলের অভিযোগ দাখিল করেছেন তারা এলাকায় একনামে ভূমিদস্যু হিসেবে পরিচিত। তাদের বিরুদ্ধে অন্যের জমি জবরদখল সহ আদালতে জবরদখলের একাধিক মামলাও রয়েছে। অভিযোগকারীরা হচ্ছেন-কড়ালিয়া গ্রামের ছোরহাব আলীর ছেলে মোনায়েম খান ও জুব্বার খান। তারা এলাকার নামকরা ধনী করা পরিবার। এদের প্রায় শতাধিক বিঘা জমি রয়েছে। কড়ালিয়া গ্রামের রেজাউল জানায় ভূমি দস্যুরা উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার হযরত আলী এবং সহকারী হবিবুর রহমান এর সহযোগিতায় ভূমিহীনদের বন্দোবস্ত জমি সহ ২৫-৩০ বিঘা খাস জমি জবরদখল করে রেখেছেন। বাড়ি করার জন্য নিজেদের রেকর্ডভূক্ত জমি থাকা সত্বেও খাস জমিতে গড়ে তুলছেন বিশাল আকারের ৪টি বাড়ি। খাসজমিতে স্থাপন করেছেন ইটের পাকা ঘর। তৈয়ার করেছেন পুকুর, সাজিয়েছেন গাছের বাগান। অন্য অভিযোগকারী একই গ্রামের মনিন্দ্র চন্দ্র বিশ্বাস। মোনায়েম খান ও জুব্বার খানের ভাড়া করা লোক মনিন্দ্র কে টাকা দিলে যে কারো বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ ও সাক্ষী দিয়ে থাকে। এ বিষয়ে একই গ্রামের বাসিন্দা সুরুজ খান (৫০) জানায়-মনিন্দ্র চন্দ্রের নিজস্ব রেকর্ডভূক্ত জমি মোনায়েম খান ও জুব্বার খান নিজেদের দখলে নিয়ে ভূমিহীনের জমিতে মনিন্দ্র কে বাড়ি তৈরি করে দিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করেছেন। নাটের গুরু ভূমি অফিস সংশোধন না হলে মোনায়েম গংরা কোনদিন সংশোধন হবেন না।
এ বিষয়ে ঐ ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য নূরুল ইসলাম এর নিকট জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন-মোনায়েম খান ও জুব্বার খান যতপ্রকার ফন্দি করুক না কেন গরিবদের বন্দোবস্ত জমি ধরে রাখতে পারবে না। তবে ভূমিহীনদের জমি নিয়ে যা করছে ভুল করছে।
খাস জমি জবরদখল ও ইটের পাকা ঘর তৈয়ার করার বিষয়ে সন্ধানপুর ইউনিয়নের তহসিলদার ফজলুল হকের নিকট জানতে চাওয়া হলে তিনি জবর দখলের সত্যতা স্বীকার করে বলেন-মোনায়েম গংরা ভূমি কাঠ খড় পুড়িয়ে দখল করে আছে। তবে আপনি এক প্রতিবাদ করলে লাভ হবে না।
জবরদখলকৃত খাস জমি উদ্ধারে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কোন আদেশ আছে কিনা জানতে চাইলে ঘাটাইল সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রভাংশু সোমমহান বলেন-আমার জানামতে এরকম কোন আদেশ নাই। নতুন যোগদান করেছি তাই অনেককিছু জানা সম্ভব হয় নাই। তবে জেনে পড়ে জানাব।





মন্তব্য চালু নেই