মেইন ম্যেনু

ঘাড়ে বলিরেখা প্রতিরোধ করুন সহজ ৬ উপায়ে

আপনার ঘাড়ের ত্বকে কি সূক্ষ্ম বলিরেখা দেখা দিয়েছে? রেখাটি যদি দিন দিন প্রকট হতে থাকে তবে এটি নিয়ে চিন্তা করার সময় এসে গেছে। এই সূক্ষ্ম রেখা মূলত রিংকেল। প্রথমে হালকা করে ত্বকে দেখা দিলেও সময়ের সাথে সাথে এটি প্রকট হওয়া শুরু করে। শুরুতে এটিকে গুরুত্ব দেওয়া না হলে পরবর্তিতে এটি ত্বকে স্থায়ী হয়ে যায়। তাই রিংকেল বা বলিরেখা দেখা দেওয়ার সাথে সাথে এটি প্রতিরোধের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

১। আনারস

ভিটামিন সি সমৃদ্ধ আনারস ত্বকে কোলাজেন তৈরি করে যা ত্বকের নমনীয়তা বৃদ্ধি করে। আনারসের রস ভাল করে ঘাড়ে লাগান। বিশেষ করে রিংকেলের উপর ভাল করে লাগান। এভাবে পাঁচ মিনিট রেখে দিন। তারপর শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি নিয়মিত ব্যবহার করুন। এক সপ্তাহের মধ্যে দেখবেন রিংকেল হালকা হয়ে গেছে।

২। অলিভ অয়েল

ঘাড়ের বলিরেখা দূর করতে অলিভ অয়েল বেশ কার্যকর। অলিভ অয়েলের অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ভিটামিন ই এবং ভিটামিন এ ত্বকের বলিরেখা দূর করে। ত্বকে অলিভ অয়েল ম্যাসাজ করে লাগান। এটি ত্বক দীর্ঘ সময় ময়েশ্চারাইজড রাখে। এছাড়া অলিভ অয়েলের সাথে গ্লিসারিন এবং কয়েক ফোঁটা মধু মিশিয়ে নিন। এবার এটি ত্বকে ম্যাসাজ করে লাগান। ত্বকের মৃত কোষ দূর করে ত্বক টানটান করতে এটি বেশ কার্যকর।

৩। সানস্ক্রিন ব্যবহার

আমরা সাধারণত সানস্ক্রিন মুখে ব্যবহার করে থাকি। ঘাড়ে বলিরেখা পড়া রোধ করতে চাইলে ঘাড়েও সানস্ক্রিন ব্যবহার করা উচিত। এসপিএফ ১৫ অথবা আরও বেশি এসপিএফ সমৃদ্ধ সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন।

৪। কাঠবাদাম

৪-৫ টি কাঠবাদাম গুঁড়ো করে নিন। এর সাথে দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি মুখ এবং ঘাড়ে পাতলা করে লাগান। ৩০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর শুকিয়ে গেলে স্ক্রাব করে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন।

৫। টমেটো

একটি টমেটো পেস্ট করে নিন। এর সাথে এক চা চামচ গোলাপ জল এবং আধা চা চামচ হলুদ মেশান। এবার প্যাকটি ঘাড়ে রিংকেলের চারপাশে লাগান। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন।

৬। ডিম

প্রথমে ডিম কুসুম থেকে আলাদা করে নিন। এবার ডিমের সাদা অংশ ভাল করে ফাটুন। সাদা অংশটি ঘাড়ে পাতলা করে লাগান। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন।






মন্তব্য চালু নেই