মেইন ম্যেনু

ঘুমের মাঝে আপনার অজান্তেই ঘটে যে ৫ টি বিচিত্র ব্যাপার !

ঘুম খুবই স্বাভাবিক ও গুরুত্বপূর্ণ জৈবিক চাহিদা। আপনি খাবার ছাড়া ২ সপ্তাহ বেঁচে থাকতে পারলেও ঘুম ছাড়া ১০ দিনের বেশি বাঁচতে পারবেন না। ঘুমাতে পছন্দ করেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। বরং কাজ থাকলে ঘুমাতে না পারার কারণে বিরক্ত মানুষই বেশি নজরে পড়বে। কিন্তু আপনি জানেন কি এই স্বাভাবিক জৈবিক ক্রিয়ার সময় আপনার অজান্তেই ঘটে যায় খুব অদ্ভুত কিছু ব্যাপার যার কিছুটা আপনি অনুভব করেন আর কিছু কিছু একেবারেই অনুভব করতে পারেন না। এই বিচিত্র ব্যাপারগুলো শুনতে খুব স্বাভাবিক মনে হলেও বেশ ক্ষতিকর আপনার জন্য।

১) স্লিপ ওয়াকিং বা ঘুমের মধ্যে হাটা

ঘুমের মধ্যে হাঁটা বা স্লিপ ওয়াকিং কিন্তু অবহেলা করার মতো ঘটনা নয়। সাধারন ঘুমের সমস্যা এবং অনিদ্রা সংক্রান্ত সমস্যায় মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। অনেকে ঘুমের মধ্যে হেঁটে বাসা থেকে বের হয়ে যান এমনকি মেইন রোডে হাঁটার মতো দুর্ঘটনাও ঘটে। সুরতাং এই সমস্যাকে অবহেলা নয়।

২) ঘুমের মধ্যে স্বপ্নে উঁচু স্থান থেকে পড়ে যাওয়া

অনেক সময় ঘুমের মধ্যে স্বপ্নে উঁচু স্থান থেকে পড়ে যাওয়ার বিষয়টি অনুভব করেন অনেকে এবং ঝাঁকুনি দিয়ে ঘুম ভেঙে যায়। এই সমস্যাটিও অনিদ্রা এবং আধো ঘুমের মধ্যে হয়ে থাকে। কারণ আপনার দেহ ঘুমিয়ে যাওয়ার আগেই আপনি স্বপ্ন দেখা শুরু করে দেন যার প্রভাব পড়ে আপনার মস্তিষ্কে যাকে বলে হাইপনেজোজিক জার্ক। আর এতেই এই অনুভূতি পান আপনি। এক্সপ্লোডিং হেড সিনড্রোম এই সমস্যাটিকেও বলা হয় যেখানে অনেকের জোরে শব্দ শুনে এবং উজ্জ্বল আলো দেখে ঝাঁকুনি দিয়ে ঘুম ভেঙে যায়।

৩) স্লিপ প্যারালাইসিস বা বোবায় ধরা

অনেক সময় ঘুমের মধ্যে অনুভব করা কিছু একটা বুকের উপর চেপে বসে আছে, চিৎকার করতে চাইলেও না পারা এবং আপনি নিজেকে নড়াতে পারছেন না ইত্যাদি অনুভব হওয়ার সমস্যাকে স্লিপ প্যারালাইসিস বা বোবায় ধরা বলে। এই সমস্যাটি শুধু ভয়াবহই নয়, মারাত্মকও বটে। অনেক সময় এই সমস্যায় শ্বাসকষ্ট এবং ভয়ের কারণে হার্টের ক্ষতি পর্যন্ত হতে পারে। এই সমস্যা হয় যখন আপনি অতিরিক্ত বিষণ্ণ এবং মানসিক চাপে থাকেন। আর এই সমস্যাটি ঘুমের মধ্যে স্বপ্নে উঁচু স্থান থেকে পড়ে যাওয়া সমস্যার পুরোপুরি বিপরীত। এই স্লিপ প্যারালাইসিসে আপনার দেহ ঘুমিয়ে থাকে কিন্তু মস্তিষ্ক পুরোপুরি সজাগ থাকে।

৪) একই স্বপ্ন বারবার দেখা

একই স্বপ্ন বারবার দেখা মোটেও ভালো লক্ষণ নয়। এটি মানসিক সমস্যার পূর্বলক্ষণ। আপনি যদি একই স্বপ্ন বারবার এবং ঘন ঘন দেখতে থাকেন তাহলে বুঝতে হবে আপনার মস্তিষ্কে কোনো একটি দুর্ঘটনার ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে যা আপনি ভুলতে পারছেন না অবচেতন মন থেকেই।

৫) স্লিপ টকিং বা ঘুমের মধ্যে কথা বলা

ঘুমের মধ্যে কথা বলাও অনিদ্রা জনিত সমস্যা। এই সমস্যা মূলত ২-৩ ঘণ্টার ঘুমে হয়ে থাকে, যেখানে আমাদের মাংসপেশি পুরোপুরি ঘুমুতে পারে না এবং কথা বলার মতো নড়াচড়া করার ক্ষমতা রাখে। যারা এই সমস্যায় অনেক বেশি ভোগেন তারা ঘুমের মধ্যেই অনেকটা সময় আলোচনা চালিয়ে যেতে পারেন এবং ঘুম ভাঙলে কিছুই মনে করতে পারেন না।

সূত্রঃ হেলথডাইজেস্ট






মন্তব্য চালু নেই