মেইন ম্যেনু

চট্টগ্রামে দুর্গা পূজায় উৎসবের আমেজ

ষষ্ঠী পূজার মধ্য দিয়ে সারা দেশের মতো চট্টগ্রামেও শুরু হয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজা। ষষ্ঠীর দিনে মা দুর্গার আগমনকে কেন্দ্র করে দিনটি পালনে ভক্তদের মধ্যে আগ্রহের কমতি নেই। ষষ্ঠীর দিন মা দুর্গাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

মায়ের আগমন হলে ধরাধামে তাকে বরণ করে নেয় ভক্তরা। আর তখনই মা তার ভক্তদের কাছে স্বরূপে আর্বিভূত হন। এদিকে চট্টগ্রামের মন্ডপগুলোর সাজসজ্জা এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। ষষ্ঠীর কয়েকদিন আগে রংতুলির আঁচড় দিয়ে রাঙ্গিয়ে তোলা হয়েছে প্রতিমার শরীর।

রবিবার সন্ধ্যায় মন্ডপগুলোতে প্রতিমা স্থাপন করা হয়ে গেছে। রাতভর চলেছে অলঙ্কার পরানো। প্রতিমার সাজসজ্জার কোনোদিকে ত্র“টি যেন না থাকে তার প্রতি অত্যন্ত কড়া নজর কারিগর ও পূজার্থীদের। সোমবার সন্ধ্যার দিকে আনুষ্ঠানিকভাবে ষষ্ঠী উদযাপন শুরু হয়েছে। নগরীর দুই নম্বর গেট এলাকার গৌরাঙ্গবাড়ি সেবা আশ্রমে গিয়ে দেখা গেল মন্ডপ প্রায় প্রস্তুত। প্রতিমা আগেই স্থাপন করা হয়েছে।

এখন সেখানকার কারিগরররা ককশিট দিয়ে মন্ডপ সাজাচ্ছেন। মন্ডপের তিনপাশে প্রতিমার পেছনে, পাশে অলঙ্করণের জন্য এসব ককশিট বিভিন্ন আকৃতিতে কাটছেন তারা।নকশার মধ্যেই ফুল, পাখি, মানুষ, কোনোটিতে আবার স্বয়ং শিবের আকৃতি দেয়া হচ্ছে। ককশিট দিয়ে সুন্দর নকশা করা ঝাড়বাতি তৈরি করে উপরে লাগিয়ে দেয়া হয়েছে।

অন্যান্য নকশাগুলো তৈরি করা হচ্ছে সতর্কতার সাথে। যাতে কোনোরকম খুঁত না থাকে।

কারিগর প্রদীপ কুমার জানালেন, মায়ের আর্বিভাবকে কেন্দ্র করে আজকের এই ষষ্ঠী পালনের আয়োজন।

আমরা খুব উৎসাহের মধ্য দিয়েই আজকের দিনটি পালন করবো। তাই খুব জোরে সোরেই তার প্রস্তুতি চলছে। সন্ধ্যায়ই আনুষ্ঠানিকভাবে পূজা আরম্ভ হবে। পূজা সন্ধ্যায় হলেও মন্ডপে আসা এক পূজার্থী বলেন, বছরে তো একবারই মা দুর্গা ধরণীতে আসেন। তার উৎসব চলবে পাঁচদিন ধরে। তাই দেখে যাচ্ছি প্রস্তুতি কেমন হয়েছে।

নগরীতে মন্ডপগুলোতে শারদীয় দুর্গা পূজার আমেজ বেশ লক্ষ্য করা মতো। শরতে দুর্গার আগমণ হলে তখন তাকে শারদীয় দুর্গা পূজা বলা হয়। সকাল থেকেই তাই হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকেরা শারদীয় দুর্গা পূজার আয়োজনে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

চট্টগ্রাম জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্যামল কুমার পালিত জানান, পূজার প্রস্তুতি সার্বিকভাবে ভালো হচ্ছে। এখন পর্যন্ত পূজা আয়োজনে কোনোরকম অসুবিধা সৃষ্টি হয়নি। আমরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ কমিশনারের সাথে বৈঠক করেছি। তারা আমাদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছেন।

তাছাড়া এলাকাগুলোতে প্রশাসন সচেতনতার সাথে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। এদিকে চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সপাদক রতকর দাশ টুনু বলেন, বিকেলে জে এম সেন হলে নগরীর প্রধান পূজা মন্ডপ উদ্বোধন করা হয়েছে।

এছাড়া নগরীর আরো ২০ টির বেশি বড় পূজা মন্ডপও একই সময়ে উদ্বোধন করা হয়েছে। নগরীতে এবার বড় পূজা মন্ডপগুলোর মধ্যে রয়েছে জে এম সেন হল, হাজারী গলি, কুসুমকুমারি স্কুল, নালাপাড়া, পাহাড়তলি শাশ্বত কুটির। এবার চট্টগ্রামে ১৯৬৩ টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে ১৪ টি উপজেলায় ১৫০৬ টি এবং নগরীতে ৩২৫ টি মন্ডপ রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই