মেইন ম্যেনু

চট্টগ্রামে নজিরবিহীন নিরাপত্তা

টিম হোটেল রেডিসন ব্লু থেকে সাগরিকার জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম প্রায় ৬ কিলোমিটার দূরে। এর পুরোটাই নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলেছে র‌্যাব-পুলিশ। এই নিরাপত্তা শুধু সফরকারী ইংল্যান্ড দলের জন্যই নয়, এটা থাকছে স্বাগতিক বাংলাদেশ দলের জন্যও।

এর আগে ওয়ানডে সিরিজ চলাকালীন ঢাকাতেও এমনটা দেখা গেছে। দুই দলকে রাখা হয়েছিল পূর্ণ নিরাপত্তায়। তবে চট্টগ্রামে ব্যতিক্রম একটা জায়গায়। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে মূল গেইটে টিম বাস থামার সঙ্গে সঙ্গে পুরো এলাকা আর্ম-পুলিশ ঘিরে ফেলে। আর সেই পুলিশি প্রহরার মধ্যেই টিম বাস থেকে একেক জন করে মাঠে ঢোকেন ইংল্যান্ড ও বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা।

এছাড়া ক্রিকেটারদের টিম বাস আসার আগেই স্টেডিয়ামের মূল গেইটে একদল সশস্ত্র পুলিশ অবস্থান নেয়। কোনো অঘটন যাতে না ঘটে, তার জন্য সদা প্রস্তত তারা। খেলোয়াড়দের নিরাপত্তার জন্য তাদের বন্দুক তাক করে থাকতে দেখা গেছে।

গুলশান ও শোলাকিয়ায় সন্ত্রাসী হামলার পর ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফর নিয়ে শঙ্কা জেগেছিল। কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে পূর্ণ নিরাপত্তার আশ্বাস পেয়েই সফরকারী দল ঠিক সময়ে বাংলাদেশে আসে। তাদেরকে বিশ্বমানের নিরাপত্তাই দেয়া হচ্ছে। এ কথা স্বীকার করেছেন ইংল্যান্ডের কোচ-খেলোয়াড়রাও। ঢাকার পর চট্টগ্রামেও তাই দেখা গেছে নজিরবিহীন নিরাপত্তা।






মন্তব্য চালু নেই