মেইন ম্যেনু

চবি’তে বঙ্গবন্ধুর ৯৭তম জন্মবার্ষিকী পালিত

সাফাত জামিল শুভ, চবি: যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৭তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে। ১৭ই মার্চ শুক্রবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বঙ্গবন্ধু চত্বরে’ মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী ও উপ-উপাচার্য ড. শিরীণ আখতার চবি’র সকল কর্মকর্তা,কর্মচারীদের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এসময় রাজনীতির মহাকবি বঙ্গব্ন্ধুর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত এবং দেশের শান্তি-সমৃদ্ধি-উন্নতি ও মঙ্গল কামনা করে বিশেষ মুনাজাত করা হয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলমগীর টিপু’র নেতৃত্বে র‍্যালীতে অংশ নেয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। একে একে পুষ্পস্তবক অর্পন করে শ্রদ্ধা জানায় বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো। পরে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও দিনভর নানা কর্মসূচী পালিত হয়।

১৯২০ সালের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু বৃহত্তর ফরিদপুর জেলার তত্কালীন গোপালগঞ্জ মহকুমার টুঙ্গিপাড়ার সম্ভ্রান্ত শেখ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম শেখ লুত্ফর রহমান ও মাতার নাম সায়েরা খাতুন। পিতা-মাতার চার কন্যা এবং দুই পুত্রের সংসারে তিনি ছিলেন তৃতীয়। খোকা নামের সেই শিশুটি পরবর্তীতে হয়ে ওঠেন নির্যাতিত-নিপীড়িত বাঙালির ত্রাতা ও মুক্তির দিশারী। গভীর রাজনৈতিক প্রজ্ঞা, আত্মত্যাগ এবং জনগণের প্রতি মমত্ববোধের কারণে পরিণত বয়সে হয়ে ওঠেন বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা। এক রাজনৈতিক সংগ্রামবহুল জীবনের অধিকারী এই নেতা বিশ্ব ইতিহাসে ঠাঁই করে নেন স্বাধীন বাংলাদেশের রূপকার হিসাবে। বাঙালি জাতির ইতিহাসে বঙ্গবন্ধুর অবদান চিরদিন স্বর্ণাক্ষরে লিপিবদ্ধ থাকবে।

৭৫’র ১৫ আগস্ট কালরাতে ঘাতকদের তপ্ত বুলেটে সপরিবারে নিহত হন বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।






মন্তব্য চালু নেই