মেইন ম্যেনু

চমৎকার যে জায়গাগুলো একবার দেখলে ভুলবেন না সারাজীবন

প্রকৃতির অপার লীলার মাঝে হারিয়ে যেতে চাই আমরা সবাই। কিন্তু এই বিশাল ধরণীর সৌন্দর্য্য এক জীবনে দেখে শেষ করা সম্ভব নয়। এত রূপ, এত বৈচিত্র, এর মাঝে এটা নির্ণয় করা কঠিন যে কোনটা দিয়ে শুরু করব আমার ভ্রমণ ডায়েরী। তাই আসুন জেনে নিই বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর অভূতপূর্ব জায়গাগুলোর কথা যেগুলো না দেখলে মনে হবে যেন কিছুই দেখেন নি।

হোয়াইটহেভেন বীচ, অস্ট্রেলিয়া-
হোয়াইট সান্ডে দ্বীপের ৭ কিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত বীচটি সাদা বালির জন্য বিশেষভাবে পরিচিত। নামেই বুঝতে পারছেন, সাদা বালির সেই বিন্যাস এক অপরূপ স্বর্গীয় সৌন্দর্য্যের সৃষ্টি করে। দ্বীপটিতে প্রবেশ করতে পারবেন নৌকার সাহায্যে। নৌকা নিতে হবে এয়ারলি বীচ এবং সুত হার্বারের পর্যটন পোর্ট থেকে। হ্যামিলটন দ্বীপ থেকেও যেতে পারেন অবশ্য। CNN.com বীচটিকে বিশ্বের সবচেয়ে পরিবেশ বান্ধব বীচ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। কুকুর নিয়ে এই বীচে যাওয়া যায় না এবং ধূমপান অবশ্যই নিষিদ্ধ।

ওয়েস্টিন মাওয়ী রিসোর্ট এবং স্পা, হাওয়াই
বিশ্রামই যদি হয় আপনার ভ্রমণের উদ্দেশ্য তাহলে এই রিসোর্টটি আপনারই জন্য সাজিয়ে রেখেছে তার পসরা। চমৎকার লবি, পুল, মনোমুগ্ধকর সৌন্দর্য্য, নানান ধরণের স্পার ব্যবস্থা একে গুরুত্বপূর্ণ করে তুলেছে কাজের দুনিয়ার ব্যস্ত মানুষদের মাঝে। জীবনের দৌড়ঝাঁপ এড়িয়ে শান্তিময় একটি ছুটি কাটাতে পারেন এখানে। চিরস্মরণিয় হয়ে থাকবে এটি, নিঃসন্দেহে।

ফেইরি পুল, স্কটল্যান্ড
স্কটল্যান্ডে বেড়ানোর চিন্তা হয়ত আপনার মাথায় আছে। যদি কখনো যান, তাহলে অবশ্যই ফেইরি পুলে যাবেন। এটি স্কটল্যান্ডের আইসল অব স্কি তে কুলিন্স হিলে অবস্থিত। ফেইরি পুলগুলো আসলে স্বচ্ছ, ঠান্ডা পানির পুল এবং জলপ্রপাত যা রূপকথার গল্পের মতই রহস্যে ঘেরা।

ক্যারেরা লেকের মার্বেল কাভার্ণস- চিলি
চিলির পাতাগোনিয়ায় অবস্থিত লেক জেনারেল ক্যারেরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের অনন্য ভান্ডার। এখানে আছে আজিউর ট্যাম্পল, যা মনুষ্যসৃষ্ট নয়। অবাক লাগলেও সত্যি, এই মন্দির প্রাকৃতিক উপায়ে তৈরি। এর দেয়াল মার্বেলের তৈরি, যা আবার পানিতে পরিপূর্ণ। এখানে না গেলে আপনি বিশ্বাস করবেন না, আমাদের পৃথিবী যে কত অদ্ভুত আর বিস্ময়কর হতে পারে!

সাহারা ব্রীজ- ইয়েমেন
চমৎকার এই ব্রীজটি যুক্ত করে ইয়েমেনের দুই পর্বতচূড়াকে। সাহারা ব্রীজ নির্মিত হয় ১৭ শতকে। তুর্কিদের সাথে যুদ্ধের প্রয়োজনে। ব্রীজটির অবস্থান হয়ত ভয় তৈরি করবে আপনার মনে। কিন্তু এটি একটি চমৎকার জনপ্রিয় টুরিস্ট আকর্ষণ। জীবনে একবার হলেও এর উপর দাঁড়িয়ে উপভোগ করা উচিত অভূতপূর্ব প্রাকৃতিক দৃশ্যগুলো।

হাভাসু জলপ্রপাত- গ্রান্ড ক্যানিয়ন ন্যাশনাল পার্ক
হাভাসু জলপ্রপাত পৃথিবীর বুকে স্বর্গ। একবার এর রূপ দেখলে আর কিছু দেখতে চাইবেন না আপনি। আরিজোনার প্রত্যন্ত ক্যানিয়নে এর অবস্থান। যত দূরেই হোক প্রতি বছর অসংখ্য মানুষ ছুটে যায় জল্প্রপাতটি দেখতে। এর নীলাভ সবুজ পানি চারপাশের সবুজ প্রকৃতির সাথে মিলে তৈরি করে কল্পনারও অতীত সৌন্দর্য্যের। এই সৌন্দর্য্য থেকে দূরে রাখবেন না নিজেকে।

Fjaðrárgljúfur Canyon – আইসল্যান্ড
২ কিলোমিটার লম্বা এবং ১০০ মিটার গভীর একটি অপূর্ব ক্যানিয়ন এটি। এর অবস্থান আইসল্যান্ডের দক্ষিণ-পশ্চিমে। গ্রাসিয়ার থেকে উৎপত্তি হও্যা ক্যানিয়নটিকে দুই পাশে ঘিরে আছে পাহাড়ের সারি। অপূর্ব সেই দৃশ্য না দেখলেই নয়। উপর থেকে দেখলে মনে হয় সর্পিল কিন্তু মায়াবি একটি পথ যা এগিয়ে গেছে কোন রহস্যপুরীর দিকে।






মন্তব্য চালু নেই