মেইন ম্যেনু

চলচ্চিত্র পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকন আর নেই

অবশেষে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর না ফেরার দেশে চলে গেলেন বিশিষ্ট চলচ্চিত্র পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকন।

সোমবার (৪ এপ্রিল) সকাল পৌনে ৯টার দিকে ঢাকার উত্তরার বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। এখানেই দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। বাদ জোহর এফডিসিতে এ চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

শহীদুল ইসলাম খোকনের ভাতিজা রাইসুল রনি তার মৃত্যুর সংবাদ নিশ্চিত করে জানান, তার মরদেহ কোথায় নেয়া হবে তা পারিবারিকভাবে সিদ্ধান্ত নেয়ার পর জানানো হবে।

শহীদুল ইসলাম খোকনের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক ও পরিবেশক এবং শিল্পীসমিতি। এ ছাড়াও শোক জানিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি।

উল্লেখ্য, চলচ্চিত্র পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকন মুখগহ্বরের মোটর নিউরো ডিজিসে (এএলএস) আক্রান্ত হয়েছিলেন। এই গুণী নির্মাতার উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারও এগিয়ে আসে। তাকে ২০১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেয়া হলে নিউইয়র্কের বেলভিউ হাসপাতালের চিকিৎসকেরা জানিয়ে দেন, এ রোগের নিরাময় সম্ভব নয়। এরপর তাকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়। তখন থেকেই ধানমণ্ডি ও উত্তরার বিভিন্ন হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছিল।

তার পরিচালিত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রগুলো হচ্ছে- ‘ঘাতক’, ‘পালাবি কোথায়’, ‘লাল সবুজ’, ‘ম্যাডাম ফুলি’, ‘ভণ্ড’, ‘লড়াকু’, ‘বীরপুরুষ’, ‘বজ্রমুষ্টি’, ‘বিপ্লব’, ‘অকর্মা’, ‘সতর্ক শয়তান’, ‘বিষদাঁত’, ‘টপ রংবাজ’, উত্থান পতন’।






মন্তব্য চালু নেই