মেইন ম্যেনু

চাঁদপুরে স্কুলে হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ৪

চাঁদপুরের কচুয়ায় শোক দিবস উপলক্ষে দাবিকৃত চাঁদা না পেয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ওপর হামলার ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইমরান নামের ওই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রকেও আটক করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন পালাখাল ডিগ্রি কলেজের ছাত্র মোজাম্মেল হক (২২), আলাউদ্দিন (৩২), মো. সবুজ (১৯), অজি উল্লা (৩২) ।

কচুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ইবরাহিম খলিল বলেন, রোববার রাতে ভূঁইয়ারা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দুলাল চন্দ্র সরকার বাদী হয়ে ফারুক, লিটন ও মনিরসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরো ২০ জনকে আসামি করে একটি মামলা করে। মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ওপর সন্ত্রাসীর হামলার অভিযোগ আনা হয়।

মামলা দায়ের করার পর সোমবার রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত অভিযান চালানো হয়। এ সময় চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করা হয়।

চাঁদপুরের সহকারী পুলিশ সুপার মো. আবদুল হানিফ বলেন, চারজনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের আদালতে সোপর্দ করা হবে। এ ছাড়া ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এর আগে বিদ্যালয়টির প্রধান শিক্ষক দুলাল চন্দ্র দে অভিযোগ করে বলেন, ‘শুক্রবার মনির, ফারুক ও লিটনসহ যুবলীগ নামধারী স্থানীয় কয়েকজন যুবক জাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য স্কুলে এসে চাঁদা দাবি করে। আমি চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানাই। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে শনিবার সন্ধ্যায় আবারও তারা চাঁদা চাইতে আসে। একপর্যায়ে তারা আমাকে ও হল সুপার ফজলুর রহমানসহ আরো দুই শিক্ষককে লাঞ্ছিত ও মারধর করে।’

ভূঁইয়ারা উচ্চবিদ্যালয়ের হল সুপার ফজলুর রহমান বলেন, ‘শিক্ষকদের লাঞ্ছনা ও মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে রোববার দুপুরে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে। খবর পেয়ে কর্মসূচিতে লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় ওই সন্ত্রাসীরা। এতে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকসহ অন্তত ৩০ জন আহত হন।’






মন্তব্য চালু নেই