মেইন ম্যেনু

রাত পোহালেই চাঁদপুরে ৪০ গ্রামে ঈদ

রাত পোহালেই বৃহস্পতিবার সকালে চাঁদপুরের ৪০ গ্রামে ঈদুল আজহা পালিত হবে। ইতোমধ্যে জেলার প্রায় ৩০ হাজার মানুষ ঈদ পালনের সকল প্রস্তুতি শেষ করেছেন।

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে কোরবানির ঈদ উদযাপন করবে হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা, সমেশপুর, অলিপুর, বলাখাল, মনিহার, বেলাঁচা, ঝাকনি, সেনাগাঁও, প্রতাপপুর, দক্ষিণ বলাখাল ও বাসারা গ্রামের বাসিন্দারা। এছাড়া ফরিদগঞ্জ উপজেলার উভারামপুর, উটতলী, মুন্সিরহাট, মূলপাড়া, বদরপুর, আইটপাড়া, সুরঙ্গচর, বালিথুবা, কাইতাড়া, নুরপুর, সাচনমেঘ, ষোল্লা, হাঁসা, গোবিন্দপুর, চরদুখিয়া, মতলবের দশানী, মোহনপুর, পাঁচানী এবং শাহরাস্তি উপজেলার ও কচুয়া উজানির কয়েকটি গ্রামও কাল ঈদ পালন করবে।

হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা গ্রামের পীর আবদুল হাই জানান, বৃহস্পতিবার তাদের গ্রামে সকাল ৯টায় প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হবে। তিনি নিজেই এতে ইমামতি করবেন।

১৯২৮ সাল থেকে ওই সব গ্রামের লোকজন সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ইসলামের সব ধর্মীয় রীতিনীতি অনুসরণ করে আসছেন। জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা গ্রামের সাদ্রা হামিদিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল পীর মাওলানা ইছহাকের মৃত্যুর পর থেকে তার ৬ ছেলে এ মতবাদের প্রচার চালিয়ে আসছেন। এদের মধ্যে মরহুম পীর সাহেবের বড় ছেলে আবু যোফার মোহাম্মদ আবদুল হাই সাদ্রাভী অন্যতম। জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও গ্রামে প্রায় ৮৪ বছর ধরে এভাবে রোজা, ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহা উদযাপিত হয়ে আসছে।






মন্তব্য চালু নেই