মেইন ম্যেনু

প্রার্থী আবদুল হাই সামান্য কিছু টাকা নিয়ে পালিয়ে গেল

চাটখিলে বিএনপি-জামায়াত প্রার্থীদের প্রচার গাড়িতে হামলার অভিযোগ

এম.এ আয়াত উল্যা, স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী : নোয়াখালী চাটখিল উপজেলায় আগামী ২৩এপ্রিল চাটখিল উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সাধারন সদস্য ও মহিলা সদস্য প্রার্থীদের, প্রচার প্রচারণা তুঙ্গে রয়েছে। এদিকে বিএনপি-জামায়াত প্রার্থীদের প্রচার কাজে বাঁধা, কর্মীদের উপর হামলা, ব্যানার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা সহ নানাহ অভিযোগ উত্থাপন করেছে প্রার্থীরা। তার মধ্যে ৪নং বদলকোট ইউনয়নের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আবু হানিফ জানান শান্তিপ্রিয় বদলকোট ইউনিয়ন যেন অস্ত্রের ঝনঝনানিতে পরিণত হয়েছে। বিভিন্ন বাহিনী দিনে রাত্রে অস্ত্রের মহড়া দিয়ে যাচ্ছে। শুধু ভোটার নয় সর্বস্তরের জনতাই আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছে। ৭নং হাটপুকুরিয়া ঘাটলাবাগ ইউনিয়নে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আবদুল হাই সামান্য কিছু টাকা নিয়ে পালিয়ে গেলেও, বিদ্রোহী প্রার্থী তাজুল ইসলাম মাঠে আছে, তিনি ও একই অভিযোগ করেন। ৮নং নোয়াখলা ইউনেয়নের জামায়ত সমর্থীত প্রার্থী তানভীর আহমেদ বলেন- আমার প্রচার মাইক যে দিকেই যায় সেই দিকেই হামলার শিকার হয়। ১১,১২,১৪ তারিখে আমার প্রচার মাইক ভাঙচুর, কর্মীদের উপর হামলা, নির্বাচনী প্রচারণা সংগীতের মেমোরি সহ মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার বিকেলে ইউনিয়নের সাধুরখিল গ্রামে প্রচারণা চালানোর সময় প্রতিপক্ষের হামলায় আহছান হাবিব (১৯), ফয়সাল হোসেন (১৮) ও শাহাদাত হোসেন (২০) কে বেধম প্রহার করে প্রচার গাড়ি ও মাইক ভাঙচুর করা হয়। এদিকে ৪নং বদকোট ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী সোলাইমান শেখকে নির্বাচন আচরণ বিধি ভঙ্গ করে তোরণ নির্মান করায়, ভ্রাম্যমান আদালত ১০,০০০ টাকা জরিমানা আদায় করেন।






মন্তব্য চালু নেই