মেইন ম্যেনু

চামড়ার দিন শেষ, ফল ও সবজি দিয়েই তৈরি হচ্ছে লেদার ব্যাগ!

স্নাতক পড়ুয়া ছাত্রদের একটি দল তাদের প্রজেক্ট করার সময় একটি নতুন উপায় আবিষ্কার করেন। তারা ব্যবহৃত ফল ও সবজির অবশিষ্ট অংশ নিয়ে লেদার ব্যাগ তৈরি করেন। তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি প্রজেক্ট বৃহদায়তন নকশা প্রকল্পে পরিণত হয়েছে। তারা বাজার থেকে অবশিষ্ট খাবার সংগ্রহ করেন। তারপর তা দিয়ে নমনীয় ও চামড়ার ন্যায় ফ্যাব্রিক তৈরি করা শুরু করে।

তারা বলেন, তাদের এসকল খাবার থেকে কিছু তৈরি করার চিন্তা তখন আসে যখন তারা দেখেন তাদের আশেপাশে ও বাসায় কত খাবার নষ্ট করা হচ্ছে। তারা সারাদিন অতিবাহিত হবার পর যত খাবার নষ্ট করা হয়, তা একত্রিত করেন।

বাজারের বিক্রেতাদের প্রতি কেজি আবর্জনা ফেলার জন্য ১২ সেন্ট প্রদান করতে হয়। তাই তারা প্রায়ই অবৈধভাবে এ সকল আবর্জনা ডাম্প করেন। তারা এ সকল সমস্যা সমাধানের জন্য চিন্তা করতে থাকেন। তারা চিন্তা করেন, খাবার কখনও নষ্ট হতে পারে না। তারা একজন ডিজাইনার এর দৃষ্টিকোণ থেকে এসকল সমস্যা সমাধানের জন্য চিন্তা করেছেন।

bag11

তারা কীভাবে এই লেদার ব্যাগ তৈরি করেছেন এর সঠিক প্রক্রিয়া কারও সাথে শেয়ার করেন নি। তবে তারা ব্যাগ তৈরির ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশী কমলার খোসা ব্যবহার করেন।

তারা সংক্ষেপে এর বর্ণনা করতে যেয়ে বলেন, তারা মার্কেট থেকে বিভিন্ন ধরণের খাবার সংগ্রহ করেন। এরপর এদের ম্যাশ আপ করে শুকিয়ে নেন, এদের সিদ্ধ করেন যেন কোন ব্যাকটেরিয়া না থাকে। এরপর এদের একটি ফ্লাট চামড়ায় রূপান্তরিত করেন।

bag22

তারা এখন তাদের তৈরিকৃত ব্যাগের শক্তি ও স্থায়িত্ব পরীক্ষা করছেন। তারা ভবিষ্যতে বিভিন্ন কোম্পানির সাথে এরকম পণ্য তৈরির জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তারা খাবার নষ্টের ব্যাপারে সমাজে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য এরকম কাজ করছেন। তারা এসকল কাজের একটি ভাল সমাধান খুঁজে বের করার চেষ্টা করছেন।

সূত্র: মেট্রো।






মন্তব্য চালু নেই