মেইন ম্যেনু

চার ছক্কা আর রান খরা, জমছে না বিপিএল

টি-২০ মূলত চার ছক্কার খেলা। কিন্তু চলতি আসরে সেভাবে রানই করতে পারছে না ব্যাটসম্যানরা। যে কারণে মাঠে দর্শকদের উপস্থিতির হারও অনেক কম। শুক্রবার প্রথম পর্বের শেষ ম্যাচ ছাড়া আগের প্রায় সব ম্যাচেই ছিল গ্যালারি ফাঁকা। দর্শক খরার জন্য আয়োজকরা অনেকটাই হতাশ। হতাশ খোদ ফ্রাঞ্চাইজিগুলোও।

কেন রান আসছে না? ব্যাটসম্যানদের ব্যাটিং ব্যর্থতার চেয়ে এক্ষেত্রে উইকেটকেই দায়ী করছেন ক্রিকেট বোদ্ধারা। অনেকের মতো কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্তুজাও মনে করেন উইকেটের চরিত্র ব্যাটসম্যানরা বুঝে উঠতে পারছে না ব্যাটসম্যানরা। তবে এটাতে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন মাশরাফি।

তার যুক্তি,‘টি-টোয়েন্টিতে ১৭০-৮০’রান হওয়ার উইকেট না এটি। এখানে ১৪০-১৫০ করা সম্ভব। সেট হয়ে গেলে কোন ব্যাটসম্যান ভাল ছন্দে থাকলে সেটা ১৭০-১৮০ও হয়ে যেতে পারে। এখানে রান করা ব্যাটসম্যানদের জন্যে চ্যালেঞ্জ, এটাও কিন্তু খারাপ দিক না। এখানে ব্যাটসম্যানরা যদি রান করতে পারে তাহলে তাদের আত্মবিশ্বাস ভাল থাকবে।’

কিন্তু মাশরাফির এই যুক্তিতে পেট ভরবে না দর্শকদের। তারা চার ছক্কার ফুলঝুরি দেখতে চায়। দর্শকদের এ চাহিদা মেটানো যাচ্ছে না বলে গ্যালারিও থাকছে ফাঁকা। অথচ আগের দুই আসরের চিত্র ছিল সম্পূর্ণ ভিন্ন। চার ছক্কার ফুলঝুরি, ছিল বড় বড় স্কোর । মাঠেও এসেছে প্রচুর দর্শক।

এবার প্রথম পর্বে ঢাকাতে হয়েছে মোট ১২ ম্যাচ। এই ১২ ম্যাচে হাফ সেঞ্চুরি হয়েছে মাত্র ১২টি। মানে ইনিংস প্রতি একটিও না। ইনিংস প্রতি রান তোলার গড় ছিল ১৩১ এর মতো। যেখানে ওভার প্রতি রানের গড় ৬.৮৩। অথচ টি-২০তে ২২০-৩০ রানও উঠছে হর হামেশা।

প্রথম পর্বের ১২ ম্যাচে দলীয় সর্বোচ্চ রান ১৮৮। ১২ ম্যাচের ৬টি ইনিংসে রান আসে একশ’র নিচে। ব্যাটিং ব্যর্থতার সুযোগে বোলারদের রাজত্ব ছিল প্রথম পর্বে। ৪ ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেট নেওয়ার তালিকার শীর্ষে থাকা সাকিব আল হাসানের বোলিং গড় ৯.২০। দ্বিতীয় স্থানে থাকা মোহাম্মদ শহীদের বোলিং গড় ১০.১২। মুস্তাফিজের ১৩.২৫। বোলিংয়ে নতুন নজির সৃষ্টি করেছেন শ্রীলঙ্কান পেসার কুলাসেকারা। ২ ম্যাচে ২০ রান দিয়ে তিনি নেন ৭ উইকেট যার গড় ২.৮৫।

কিস্তু টি-টোয়েন্টি এমন একটি খেলা যেখানে ব্যাটসম্যানদের রাজত্ব দেখতে চায় দর্শকরা। মিরপুরে প্রথম পর্বে যেটা হয়নি। কাল থেকে চট্রগ্রামে শুরু হচ্ছে দ্বিতীয় পর্ব। এ পর্বে কি রান খরা ঘুচবে?






মন্তব্য চালু নেই