মেইন ম্যেনু

চার লেন প্রকল্পের কাজ শেষ হচ্ছে ডিসেম্বরে

দেশের অর্থনীতির প্রধান লাইফ লাইন হিসেবে খ্যাত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চলমান চার লেন প্রকল্পের কাজ আগামী ডিসেম্বর মাসে শেষ হচ্ছে।

২০০৬ সালে শুরু হওয়া এই প্রকল্পটি ২০১২ সালে সম্পন্ন হওয়ার কথা থাকলেও নানা জটিলতায় ৫ দফা সময় বৃদ্ধির পরও কাজ সম্পন্ন হয়নি। তবে প্রকল্পের সর্বশেষ অগ্রগতি প্রতিবেদনে আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে দেশের বৃহত্তম এই সড়ক যোগাযোগ উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হবে বলে জানানো হয়েছে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক চার লেন প্রকল্পের চট্টগ্রাম অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক অরুণ আলো চাকমা জানান, ২০০৬ সালে প্রকল্পের কাজ শুরুর পর থেকে প্রতি বছর গড়ে ৭ দশমিক ৯৮ শতাংশ হারে কাজ এগিয়েছে।

রাজনৈতিক অস্থিরতা, পাথর আমদানির সমস্যা, উচ্ছেদ, অধিগ্রহণ, বিরূপ প্রাকৃতিক পরিবেশসহ নানা জটিলতার কারণে এই প্রকল্পের কাজ আশানুরূপ এগোয়নি। বর্তমানে প্রকল্পের আরো প্রায় ৩০ ভাগ কাজ বাকি রয়েছে।

চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে সব কাজ সম্পন্ন হবে বলে কর্মকর্তারা আশা প্রকাশ করেছেন। প্রকল্পের অগ্রগতি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম চার লেন প্রকল্পের কাজে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ কাজ হয়েছে বক্স কালভার্ট নির্মাণে।

পুরো মহাসড়কে ২৪৩টি বক্স কালভার্টের কাজ শেষ হয়েছে ৯৮ দশমিক ৭৬ শতাংশ। কালভার্টগুলোর সর্বমোট দৈর্ঘ্য হলো এক কিলোমিটার ৯৮ মিটার। আর সবচেয়ে পিছিয়ে আছে স্টিল ফুটওভারব্রিজ নির্মাণ। ১৯২ দশমিক ৩০ কিলোমিটার মহাসড়ক চার লেনে রূপান্তর করা হচ্ছে। এর মধ্যে গুরুত্ব বিবেচনায় বিভিন্ন বাজার ও ব্যস্ততম স্থানে মোট ৩৩টি স্টিল ফুটওভারব্রিজ নির্মাণের কথা রয়েছে।

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ের ধূমঘাট এলাকা থেকে চট্টগ্রাম মহানগরীর সিটি গেট পর্যন্ত প্রকল্পের চারটি প্যাকেজের মোট ৭৫ শতাংশেরও বেশি কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের পূর্বে চট্টগ্রাম অঞ্চলের ৬৬ কিলোমিটার এলাকার পূর্ণাঙ্গ কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে প্রকল্পের চট্টগ্রাম অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক অরুন আলো চাকমা জানিয়েছেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সর্বশেষ হালনাগাদ তথ্য অনুযায়ী, গত ৩১ মে পর্যন্ত এ প্রকল্পের কাজ হয়েছে ৭১ দশমিক ৮৭ শতাংশ।






মন্তব্য চালু নেই