মেইন ম্যেনু

চালু হচ্ছে উলঙ্গদের রেস্টুরেন্ট

লন্ডনে আগামী তিন মাসের মধ্যে সম্পূর্ণ নতুন ধরনের রেস্টুরেন্ট চালু হতে যাচ্ছে। এর অন্যতম বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এখানে উলঙ্গ লোকজনের জন্য একটি আলাদা কর্নার রাখা হবে। অভিনব এই রেস্টুরেন্টে যাওয়ার জন্য নাকি প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে গেছে। আগ্রহী প্রায় ৫ হাজার জনের নাম তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

এর নাম রাখা হচ্ছে বুনিয়াদ। এই হিন্দি শব্দটির বাংলা করলে দাঁড়ায় ভিত্তি। যুতসই কোনো ইংরেজি শব্দ না পেয়েই রেস্তোরাটির জন্য হিন্দি নাম বেছে নেয়া হয়েছে। এতে থাকছে দুটি অংশ। একটা পোশাকধারীদের এবং অন্যটি উলঙ্গদের জন্য। রেস্তোরার উলঙ্গ অংশে যারা আসবেন তারা কিছু সময় সমস্ত ধরনের আধুনিকতার ছোঁয়া থেকে মুক্ত থাকার সুযোগ পাবেন। এখানে থাকবে না ফোন, মোবাইল কিংবা বৈদ্যুতিক আলোর কোনো ব্যবস্থা। আর এখানে ঢোকার আগে অবশ্যই গায়ের সমস্ত পোশাক খুলে ফেলতে হবে। এখানকার খদ্দেররা জন্মদিনের পোশাকে বসে আরামসে খাওয়া দাওয়া করতে পারবেন। তবে তাদের খাবার যারা সার্ভ করবেন তারাও উলঙ্গ থাকবেন কিনা এ সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি।

এই উদ্ভট রেস্টুরেন্টের ধারণাটি যার মাথা থেকে এসেছে তিনি হলেন সেভ লিয়াল। এ সম্পর্কে স্থানীয় এক সংবাদ মাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন,‘পোশাকহীন বা উলঙ্গদের জন্য রেস্টুরেন্ট করার এই ধারণাটি বাস্তবায়িত করতে আমাদের প্রচুর খাটাখাটনি করতে হয়েছে। আমরা তাদের অংশটি আলাদা করেছি বাঁশ দিয়ে। সেখানে কোনো বৈদ্যুতিক আলোর ব্যবস্থা থাকবে না। এটি আলোকিত হবে মোমের আলোয়।’ নিজের এই রেস্টুরেন্ট নির্মাণকে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসেবে উল্লেখ করে সেভ লিয়াল বলেন, এটি নিয়ে ইতিমধ্যে ব্যাপক আগ্রহ তৈরি হয়েছে। এরইমধ্যে ৪৫২৬ জন গ্রাহকের একটি ওয়েটিংলিস্ট তৈরি করে ফেলেছেন বুনিয়াদ কর্তৃপক্ষ। এই তালিকা দেখেই বোঝা যাচ্ছে, মন চাইলেই যে কেউ এখানে আসতে পারছেন না। এজন্য আপনাকে আগে নাম লেখাতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই