মেইন ম্যেনু

চায়ের টং দোকানে বসে ছোট্ট ছেলেটাকে নিয়ে গল্পের জন্ম দিলেন সেতুমন্ত্রী

রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় অনেকেরই হুট করে চা পানের তৃষ্ণা বেড়ে যায়। কি আর করা। নেমেই বেড়া-চাটাইয়ের চায়ের দোকানে এক কাপ চেয়ে নিয়ে চুমুক।

এটা সাধারণ মানুষের নিত্যদিনের ঘটনা হলেও এবার ব্যতিক্রমী এক গল্প। কোনো সাধারণ মানুষের নিত্যদিনের গল্প নয়, একজন মন্ত্রীর গল্প। কিন্তু আবস্তব কোনো গল্প নয়। এ গল্পের জন্ম দেন কোনো এক মন্ত্রী। সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের এ গল্প।

কয়েকদিন আগে ফেনী শহরের রাস্তার পাশে এমন ঘটনার জন্ম দেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এক টং চায়ের দোকানে নেমে বসলেন তিনি।

ওই টং চায়ের দোকানে পুরী তৈরি করা হয়েছে। হাতে একটা পুরী নিলেন। একজন মুরব্বী মন্ত্রীকে দেখে এগিয়ে গেলে তাকেও এগিয়ে দিলেন পুরী।

এরপর আদা দেয়া রঙ চা চুমুক দিতে লাগলেন। চা দিতে যে ছেলেটি এলো তার সাথেও মন্ত্রী জুড়ে দিলেন খোশগল্প। তার সম্পর্কে খোঁজ-খবর নিলেন। একজন চা বয় আর মন্ত্রীর এ গল্পের ছবি ফেসবুকে বেশ আলোড়ন তুলেছে। পরে পাশের মাদরাসার শিশু ছাত্রদের সাথেও ছবি তুললেন মন্ত্রী।

সম্প্রতি মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নিজের ফেসবুক টাইমলাইনে এমন বেশকিছু ছবি প্রকাশ করেছেন। রীতিমতো ছবিগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ায় শেয়ার হয়েছে প্রায় দেড় হাজার।

ছবির নিচে রওশন নামের একজন স্কুলশিক্ষিকা লিখেছেন, ‌‘অসাধারণ। এই ধরনের ছবিগুলো দেখলে শ্রদ্ধা এবং ভালোলাগায় মন ভরে যায়।’

নূর হোসেন নামের আরেক ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘গোটা বাংলাদেশের মন্ত্রী এমপিরা যেখানে নতুন করে নিজেদের নিরাপত্তা নিয়ে ভাবছে সেখানে আমাদের নেতা জননেতা জনাব ওবায়দুল কাদের সাহেব সম্পূর্ণ ভিন্ন। তিনি মনে করেন তিনি সাধারণ মানুষের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। তাই সাধারণ জনগণের সাথে থাকতেই পছন্দ করেন।’






মন্তব্য চালু নেই