মেইন ম্যেনু

চা বিক্রেতার মৃত্যুর মামলায় পুলিশের নামই নেই!

বুধবার মিরপুর ১ নম্বর গুদারাঘাটে চাঁদা না পেয়ে পুলিশ কর্তৃক চা দোকানী বাবুল মাতুব্বরকে অগ্নিদগ্ধের ঘটনার ৪ ঘণ্টার মধ্যে দায়েরকৃত মামলা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

নিহতের স্বজনরা বারবার যেখানে এ ঘটনায় শাহ আলী থানার এসআই শ্রীধাম চন্দ্র হাওলাদারের নাম বলছে সেখানে মামলায় কোনো পুলিশ সদস্যের নামই নেই বলে অভিযোগ করেছে বাবুলের স্বজনরা।

এ ঘটনায় তড়িঘড়ি করে মামলা হলেও মামলায় অভিযুক্ত কোনো পুলিশ সদস্যকে আসামী না করায় নিহতের পরিবার পুলিশের বিরুদ্ধে আরকেটি মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বলা জানা গেছে। তবে পুলিশ বলছে, একাধিক মামলা নেয়ার নিয়ম নেই।

নিহতের পরিবারের অভিযোগ, বাবুলের চিকিৎসা নিয়ে যখন পরিবারের সদস্যরা ব্যস্ত ছিল ঠিক সে সময় পুলিশ ব্যস্ত হয়ে উঠে মামলা করা নিয়ে। অনেক সময় হত্যার ঘটনায়ও মামলা নথিভুক্ত করতে পুলিশকে কালক্ষেপণ করতে দেখা গেলেও এ ঘটনার ৪ ঘণ্টার মধ্যে পুলিশ মামলটি নথিভুক্ত করে।

বাবুলের মেয়ে লাবণী আক্তার ঢাকা মেডিকেলে সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঘটনার পর আমরা থানায় গিয়েছিলাম পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা করতে, কিন্তু মামলা নেয়নি। পুলিশের নাম বাদ দিয়ে তড়িঘড়ি করে মামলা রেকর্ড করে।’

একই সঙ্গে ঘটনার পর পুলিশ অগ্নিদগ্ধ বাবুলকে হাসপাতালের বদলে থানায় নিয়েছিল বলে জানান বাবুলের মেয়ে লাবণী।
লাবনী বলেন, ‘পুলিশ আমার বাবাকে হাসপাতালে নেয়ার ব্যাপারে কোনো সহযোগিতা করেনি। আমরাই পরে হাসপাতালে নিয়ে আসি।’

এসময় পুলিশের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করবেন বলেও জানান লাবণী।






মন্তব্য চালু নেই