মেইন ম্যেনু

চা-শিঙ্গারার খরচ ৯ কোটি !

ভারতের উত্তরপ্রদেশের মতো গুরুত্বপূর্ণ একটি রাজ্যের মন্ত্রী তারা। ফলে, নানারকমের সমস্যা আর কাজ নিয়ে কত মানুষই তো তাদের সঙ্গে দেখা করতে আসেন। তাদের একটু অতিথি আপ্যায়ন করতে হবে না? তাই বলে চার বছরে অতিথি আপ্যায়ণে চা, শিঙ্গারা, গোলাপজামের পিছনে ন’কোটি টাকা খরচ?

হ্যাঁ, উত্তরপ্রদেশের অখিলেশ যাদবের মন্ত্রিসভার সদস্যরা এই কাণ্ডই ঘটিয়েছেন। রিফ্রেশমেন্ট বিল বা ‘চা-পানি’-র খরচ হিসেবে রাজ্যের ৭২ জন মন্ত্রী গত চার বছরে মোট ৮ কোটি ৭৮ লক্ষ টাকা ব্যয় করেছেন। মূলত চা, শিঙ্গারা, মিষ্টি দিয়ে অতিথি আপ্যায়নের খরচ বাবদ এই অর্থ পেয়ে থাকেন মন্ত্রীরা। উত্তরপ্রদেশের বিধানসভায় দেয়া বিবৃতিতে খোদ মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব নিজেই এই তথ্য জানিয়েছেন। মন্ত্রীদের অতিথি আপ্যায়নের খরচ বাবদ মন্ত্রীরা এই রিফ্রেশমেন্ট বিল পেয়ে থাকেন। কিন্তু তাতেই খরচের বহর দেখে তাজ্জব হয়ে যাচ্ছেন অনেকেই।

তালিকায় সবার উপরে রয়েছেন রাজ্যের স্বাধীনদায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী অরুণকুমার কোরি। গত চার বছর অতিথি আপ্যায়ণে একাই ২২ লক্ষ ৯৩ হাজার ৮০০ টাকা খরচ করার দাবি করে বিল জমা দিয়েছেন এই মন্ত্রী। এর পরেই রয়েছেন মুহাম্মদ আজম খান। অতিথি আপ্যায়নে তিনিও কম যান না। তার জমা দেয়া বিল অনুযায়ী, গত চার বছরে অতিথিদের জন্য চা, শিঙ্গারা আর মিষ্টির ব্যবস্তা করতে ২২ লক্ষ্য ৮৬ হাজার ৬২০ টাকা খরচ করেছেন তিনি।

কিন্তু অতিথিদের জন্য চা, শিঙ্গারার বন্দোবস্তে এই বিপুল খরচ কী করে সম্ভব? মন্ত্রীরা অবশ্য জবাব তৈরি করেই রেখেছেন। তাদের দাবি, এমনিতে তাদের কোনো আয় নেই। ফলে অতিথি আপ্যায়নের জন্য নিজেদের পকেট থেকে খরচ করা সম্ভব নয়। আজম খান যেমন পাল্টা প্রশ্নও ছুড়ে দিয়ে বলেছেন, দূর-দূরান্ত থেকে নানা সমস্যা নিয়ে আসা মানুষদের এক কাপ চা খাওয়ানোটা কি অপরাধ?

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, রিফ্রেশমেন্ট বিল বাবদ মোট ২৮ জন মন্ত্রী ১২ লক্ষ টাকা অথবা তার বেশি দাবি করেছেন। এছাড়াও এক ডজন মন্ত্রী ‘পকেট মানি’ বাবদ বিশ লাখ টাকা করে সরকারি কোষাগার থেকে তুলেছেন। উত্তরপ্রদেশের মধ্যে কোনো সফরে গেলে দৈনিক ভাতা হিসেবে ২৫০০ টাকা পান মন্ত্রীরা। আর রাজ্যের বাইরে গেলে ভাতার পরিমাণ হয় ৩০০০ হাজার টাকা। কোনোরকম বিল অথবা নথি ছাড়াই এই অর্থ দাবি করতে পারেন মন্ত্রীরা।

‘অতিথি দেব ভব’— এই আপ্তবাক্যটি প্রমাণ করে ছাড়লেন উত্তরপ্রদেশের মন্ত্রীরা। অবশ্য যে আড়ম্বরের সঙ্গে বিপুল অর্থ ব্যয়ে আজো সমাজবাদী পার্টির প্রধান এবং রাজ্যের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মুলায়মসিংহ যাদবের জন্মদিন পালিত হয়, তাতে তার দলের মন্ত্রীরা অতিথিদের খাতির-যত্নে ‘এটুকু’ খরচ করবেন, সেটাই স্বাভাবিক!-এবেলা






মন্তব্য চালু নেই