মেইন ম্যেনু

চিঠি কোথায় জানতে পারবেন ঘরে বসেই

ডাক বিভাগকে তিনটি প্রকল্পের মাধ্যমে আধুনিক করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী বেগম তারানা হালিম। এ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে জনগণ অধিকতর উন্নত ডাকসেবা পাবে এবং গ্রাহকরা ঘরে বসেই ট্র্যাকিং অ্যান্ড ট্রেসিংয়ের মাধ্যমে চিঠির গন্তব্যসহ যাবতীয় তথ্য জানতে পারবে বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার(২১ জুলাই) জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে সংসদ সদস্য সুকুমার রঞ্জন ঘোষের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন। তিনি বলেন, পোস্ট ই-সেন্টার ফর রুরাল কমিনিটি শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় বর্তমানে ৫ হাজার ৫০৬টি ডাকঘরে ই-সেন্টার চালু করা হয়েছে।

আগামী ২০১৭ সালের জুন মাসের মধ্যে ৮ হাজার ৫০০টি পোস্ট অফিসকে ই-সেন্টারে রুপান্তরের পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘পোস্ট ই-সেন্টারের মাধ্যমে গ্রাম ও শহরের মাধ্যে ডিজিটাল ডিভাইড (বৈষম্য) দূর হবে। গ্রামাঞ্চলে কর্মসংস্থানের সুযোগ হবে। গ্রাম থেকে অনলাইনের সুবিধাদি, ওয়েবক্যামের ম্যাধ্যমে বিদেশের আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে কথোপকথনের সুবিধা, বিদেশ হতে আগত বৈধ রেমিটেন্সের সুবিধা প্রদান করা হবে। পোস্টাল ক্যাশ কার্ড ইএমটিএস, মোবাইল ব্যাংকিং প্রভৃতি সুবিধা ই সেন্টারে প্রদান করা হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর গ্রামীণ ডাকঘর নির্মাণ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ১৭৩টি আইসিটি বেইজড রুরাল পোস্ট অফিসের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। আরও ১৮০টি নতুন টেন্ডার করা হয়েছে। আগামী বছরের জুনের মধ্যে ১ হাজার তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর গ্রামীণ ডাকঘর নির্মাণ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই