মেইন ম্যেনু

চীনে খাওয়া হচ্ছে মানব ভ্রূণ, মৃত বাচ্চার তৈরি স্যুপ (ভিডিও সহ)

চরম ঘৃণিত এই কাজের খবর ইন্টারনেটের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে, যা পুরো বিশ্বকে হতবিহবল করে দিয়েছে।২০১৩ সালের ২৫ জুলাই দক্ষিণ কোরিয়ার ‘সিউল টাইমস’ এ একটি ইমেইল আসে যাতে ছিল এ রকম বেশ কিছু ছবি।

এ ভয়াবহ, বীভৎস ও আতঙ্ক সৃষ্টিকারী ছবিগুলোতে দেখা যায় মৃত শিশু ও নির্দিষ্ট সময়ের আগেই গর্ভপাত ঘটানো অপূর্ণাঙ্গ ভ্রুন বা ফিটাসের স্যুপ তৈরি করা হচ্ছে চীনের মানুষের খাবার জন্য

জানা যায় সেখানকার পুরুষরা তাদের শারীরিকস্বাস্থ্য ও যৌন শক্তি বাড়ানোর জন্য ভেষজ শিশু স্যুপ (herbal baby soup) খেয়ে থাকে!তাইওয়ানে মৃত শিশুরা প্রায় ৭০ মার্কিন ডলারে বিক্রি হয় গ্রিল করা ‘রুচিকর’খাবার হিসেবে!

child

২২ মার্চ, ২০০৩। গুয়াংজি প্রদেশের বিংইয়ন পুলিশ একটি ট্রাক থেকে ২৮ টি মেয়ে শিশুকে উদ্ধার করে, যাদেরকে পাচার করা হচ্ছিলো আনহুই প্রদেশের দিকে।শিশুগুলোর মাঝে সবচেয়ে বড় বাচ্চার বয়স ছিল মাত্র তিন মাস। তিন-চারটি শিশুকে একটি একটি করে ব্যাগে ঢোকানো ছিল।

উদ্ধারের সময় শিশু গুলো প্রায় মরণাপন্ন অবস্থায় ছিল। ৯ অক্টোবর, ২০০৪ এর সকাল বেলা। সুজহৌ এলাকার জিউকুয়ান শহরের একজন ব্যক্তি আবর্জনা পরিষ্কারের সময় বেশ কিছু ছিন্ন-বিচ্ছিন্ন শিশুদের দেহ দেখতে পান। দুটি মাথা, ছয়টি পা, চারটি হাত, দুটি ধর এ রকম পাওয়া গেল।

তদন্তে জানা গেল, শিশু গুলোর মাত্রই ভূমিষ্ঠ হয়েছিল, এদের বয়স হয়েছিল ১ সপ্তাহ ও রান্নার পরে খাওয়ার পর হাত-পা গুলো উচ্ছিষ্ট হিসেবে ফেলে দেয়া হয় ঐ ডাস্টবিনে।যদিও মানব ভ্রূণ খাওয়া নিষিদ্ধ করে চীনে কঠোর আইন চালু আছে, কিন্তু একইসাথে চীনের ‘এক সন্তান’ নীতি অনেক দম্পতিকে অকালে গর্ভপাত ঘটাতে বাধ্য করে, যেগুলোর সুযোগ নিচ্ছে এই রকম একদল জঘন্য মানুষ।

child1

ভিডিওটি নিচে দেখুনঃ






মন্তব্য চালু নেই