মেইন ম্যেনু

চুম্বন ছবির সেই বিখ্যাত নারীটি আর নেই

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জয়ের পর মার্কিন সেনারা যখন দেশে ফিরছে তখন নিউইয়র্কের টাইমস স্কোয়ারে এক নার্সকে জড়িয়ে চুম্বন দিচ্ছিলেন এক নাবিক। যুদ্ধ শেষের আনন্দঘন মুহূর্তের এই ছবিটির কারণে বিখ্যাত হয়ে গিয়েছিলেন গ্রেটা ফ্রায়েডম্যান নামের ওই নার্স।

সাদাকালো ফ্রেমের বিখ্যাত সেই নারীটি শনিবার চলে গেলেন পৃথিবী ছেড়ে। ভার্জিনিয়ায় নিজের বাড়িতে ৯২ বয়সে মৃত্যু হয়েছে তারা। গ্রেটার ছেলে যশুয়া ফ্রায়েডম্যান জানিয়েছেন, শেষ সময়ে নিউমোনিয়ায় ভুগছিলেন তার মা।

১৯৪৫ সালে গ্রেটা ফ্রায়েডম্যান ছিলেন ২১ বছরের তরুণী। ওই সময় তিনি দন্ত চিকিৎসকের সহকারী হিসেবে কাজ করছিলেন। পরবর্তীতে ফ্রায়েডম্যান জানিয়েছেন, ১৯৬০ সালের আগে এক লোক একটি বইতে না দেখানোর আগ পর্যন্ত তিনি ছবির বিষয়টি জানতেনই না।

১৯৪৫ সালের ১৪ আগস্ট। ঘড়ির কাঁটায় তখন ৫টা ৫১ মিনিট। যুদ্ধশেষে ঘরের পথে ফিরছেন মার্কিন সেনারা। নিউইয়র্কের রাস্তায় তখন সেনা আর সাধারণ মানুষের উপচে পড়া ভীড়। আশপাশের অনেক মার্কিনিই একে অপরকে বিজয়ের অভিনন্দন বার্তা দিচ্ছেন। নিজের বাড়ি ফিরছিলেন মেরিন সেনা জর্জ মেন্ডোসাও। হঠাৎ নজরে পড়ল সাদা পোশাক পরা এক অচেনা তরুণীর দিকে। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই তরুণীর কোমর জড়িয়ে তাকে চুম্বন করে বসেন তিনি। সেই মুহূর্তটিই ফ্রেমবন্দি করেন বিখ্যাত ফোটোগ্রাফার আলফ্রেড আইজেনস্টেড।

পরবর্তীতে লাইফ ম্যাগাজিনের পাতা জুড়ে ওই ছবিটি প্রকাশিত হয়েছিল। ছবির পাত্রপাত্রীকে অবশ্য ব্যক্তিগতভাবে চিনতেন না আইজেনস্টেড। এমনকী, দীর্ঘ দিন ধরে অনেকেই জানতেন না তাদের পরিচয়।






মন্তব্য চালু নেই